kalerkantho


কালীগঞ্জে ছেলের ছুরিতে বাবা খুন

মা ও বড় ভাই আহত

নিজস্ব প্রতিবেদক, গাজীপুর   

১০ ডিসেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



গাজীপুরের কালীগঞ্জে ছেলে নকিব হাসান হৃদয়ের (১৮) ছুরিকাঘাতে বাবা আব্দুল হাই (৬০) নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় মা রাজিয়া সুলতানা (৫০) ও বড় ভাই হাসিবুর রহমান নিলয়ও আহত হয়েছেন। গতকাল রবিবার সকালে উপজেলার তুমলিয়া ইউনিয়নের সোমবাজার এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। প্রতিবেশীরা হৃদয়কে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছে। পারিবারিক সূত্র বলেছে, হৃদয় মানসিকভাবে অসুস্থ ছিল।  

হৃদয় কালীগঞ্জ আরআরএন পাইলট সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় থেকে চলতি বছর এসএসসি পরীক্ষায় অকৃতকার্য হওয়ার পর আসন্ন পরীক্ষায় অংশ নেওয়ার কথা ছিল। বাবা আব্দুল হাই স্থানীয় সোমবাজারে রড-সিমেন্টের ব্যবসায়ী ছিলেন। 

হৃদয়ের মামা আব্দুল আলিম জানান, শনিবার রাতের খাবার খাওয়ার পর এক রুমে মা-বাবা ও অন্য রুমে হৃদয় ও তার আরেক ভাই ঘুমিয়ে পড়েন। রবিবার ভোর ৬টার দিকে হৃদয় ছুরি নিয়ে ঘুমন্ত বাবাকে উপর্যুপরি আঘাত করে। রড দিয়ে মাথায়ও আঘাত করে। মা রাজিয়া সুলতানা টের পেয়ে বাধা দিলে তাকেও রড দিয়ে আঘাত করে। মায়ের চিৎকারে বড় ভাই নিলয় এগিয়ে এলে তাঁকেও রড দিয়ে আঘাত করে। তাঁদের চিৎকারে আশপাশের লোকজন এসে আব্দুল হাইকে কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন। মামা বলেন, ‘গত চার-পাঁচ বছর ধরে ভাগ্নে হৃদয় মানসিকভাবে বিকারগ্রস্ত।’

স্থানীয়রা জানায়, ঘটনার পর হৃদয় ঘরের দরজা বন্ধ করে ভেতরে অবস্থান করছিল। সেখানে সে নিজের মাথার চুল নিজেই কাটতে শুরু করে। যাতে সে পালিয়ে না যায় সে জন্য ঘরের দরজা বাইরে থেকে আটকে দেওয়া হয়। পরে পুলিশে খবর দেওয়া হয়। এ সময় হৃদয় গলায় রশি লাগিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করলে পুলিশ দরজা ভেঙে তাকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়।     

কালীগঞ্জ থানার ওসি মো. আবুবকর মিয়া বলেন, হৃদয় মানসিক অসুস্থ, না ইচ্ছাকৃতভাবে বাবাকে খুন করেছে, তা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।



মন্তব্য