kalerkantho


রিজভীর অভিযোগ

সরকার তারেকের সাক্ষাৎকার রুখতে নেট কেটে দিয়েছে

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২০ নভেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



মনোনয়নপ্রত্যাশীদের সঙ্গে দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের সাক্ষাৎকার রুখতে গুলশানে চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ের ইন্টারনেট যোগাযোগ সরকার বন্ধ করে দিয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবীর রিজভী। গতকাল সোমবার রাত সাড়ে ৯টায় নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত এক জরুরি সংবাদ সম্মেলনে রিজভী এ অভিযোগ করেন।

রিজভী বলেন, ‘নির্বাচন কমিশনের সচিব বললেন, বিএনপির মনোনয়নপ্রক্রিয়ায় ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের সংশ্লিষ্টতার বিষয়ে নির্বাচন কমিশনের কিছু করার নেই। এর পরপরই গুলশান অফিস থেকে আমাকে জানিয়েছে, সেখানে সব ইন্টারনেট লাইন বন্ধ হয়ে গেছে, স্কাইপ বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। এর উদ্দেশ্য একটাই, বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান যাতে মনোনয়নপ্রত্যাশীদের সাক্ষাৎকার গ্রহণ করতে না পারেন। আমি সরকারের এহেন ন্যক্কারজনক সংকীর্ণ মানসিকতার নিন্দা ও  ধিক্কার জানাই এবং অবিলম্বে স্কাইপ খুলে দেওয়ার আহ্বান জানাচ্ছি।’

রিজভী বলেন, ‘সরকার নির্বাচনকে নিজেদের অনুকূলে নেওয়ার জন্য ক্লান্তিহীনভাবে রাষ্ট্রযন্ত্রকে ব্যবহার করছে। স্কাইপ বন্ধ করার ঘটনা সরকারের নিম্নরুচির পরিচায়ক। আবারও প্রমাণিত হলো, নির্বাচনী মাঠ আওয়ামী জোটের একচেটিয়া দখলে থাকবে।’ তিনি আরো বলেন, রাজধানীতে যশোরের মনোনয়নপ্রত্যাশী আবু বকর, ছা্ত্রদলের আব্বাস, মো. হোসেন, আশরাফুল ইসলাম রবিন, জাকির হোসেন, মাহবুবুল আলম, খুলনার শাহিনুর আলমকে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী তুলে নিয়ে আটকের পর এখন অস্বীকার করছে, যা উদ্বেগজনক। ঢাকা মহানগর দক্ষিণের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও ধানমণ্ডি থানার সভাপতি শেখ রবিউল আলমকে সাদা পোশাকে পুলিশ রাতে গ্রেপ্তার করেছে অভিযোগ করে তিনি বলেন, সবাইকে দ্রুত মুক্তি দিতে হবে। সংবাদ সম্মেলনে মুনির হোসেন, বেবী নাজনীন, আশরাফউদ্দিন বকুল প্রমুখ নেতা উপস্থিত ছিলেন।



মন্তব্য