kalerkantho

গুলশান লেক

ওয়াটার ট্যাক্সি চলাচলে হাইকোর্টের নিষেধাজ্ঞা

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২০ নভেম্বর, ২০১৮ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



গুলশান লেকে ওয়াটার ট্যাক্সি চলাচলের ওপর চার মাসের নিষেধাজ্ঞা দিয়েছেন হাইকোর্ট। একই সঙ্গে ওয়াটার ট্যাক্সির চলাচলে সৃষ্ট ঢেউয়ের আঘাতে গুলশান বাড্ডা লেকের তীরবর্তী ওয়াকওয়ে ধসের কারণে লেকপারের ভবনগুলো ঝুঁকির সম্মুখীন হওয়ায় ট্যাক্সি চলাচল কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছেন আদালত। গতকাল সোমবার বিচারপতি তারিক উল হাকিম ও বিচারপতি মো. সোহরাওয়ার্দীর বেঞ্চ এই আদেশ দেন।

জনস্বার্থে হাইকোর্টে রিট আবেদনটি করেন গুলশান সোসাইটির সেক্রেটারি জেনারেল ও সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ব্যারিস্টার শুক্লা সারওয়াত সিরাজ। রিট আবেদনের পক্ষে তিনি নিজেই শুনানি করেন। সরকারপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল আমাতুল করিম।

চার সপ্তাহের মধ্যে বিআইডাব্লিউটিএর চেয়ারম্যান এবং ওয়াটার ট্যাক্সি পরিচালনাকারী প্রতিষ্ঠান করিম গ্রুপ, পুলিশের আইজিপি, ডিএমপি কমিশনারকে রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।

রিট আবেদনে বলা হয়, গুলশান লেকে ২০১৬ সালের ডিসেম্বর থেকে ওয়াটার ট্যাক্সি চালুর পর স্রোতের আঘাতে গুলশানের ১৩৬ নম্বর থেকে ১৪৩ নম্বর সড়কে লেকতীরবর্তী এলাকায় ভূমিধস, পাড়ে ভাঙন এবং ওয়াকওয়েতে ফাটল ধরায় লেকতীরবর্তী ভবনগুলো ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় রয়েছে।

এর আগে গুলশানের বাসিন্দাদের পক্ষ থেকে গত সেপ্টেম্বরে একটি স্বাক্ষর সংগ্রহ অভিযান চালানো হয়। এর ফলে কিছুদিন ওয়াটার ট্যাক্সি চলাচল বন্ধ রাখা হয়। কিন্তু লেকপাড় না বেঁধে এবং ওয়াকওয়ে সংস্কার না করে আবারও ওয়াটার ট্যাক্সি চালানো শুরু হয়। তাই রিট আবেদন করা হয় বলে আবেদনকারী জানান।

মন্তব্য