kalerkantho


মাদার অব হিউম্যানিটি পদক

মন্ত্রিসভায় খসড়া নীতিমালা অনুমোদন

নিজের নাম বাদ দিলেন প্রধানমন্ত্রী

বিশেষ প্রতিনিধি   

২০ নভেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



মন্ত্রিসভায় খসড়া নীতিমালা অনুমোদন

সচিবালয়ে গতকাল প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে মন্ত্রিপরিষদের সভা অনুষ্ঠিত হয়। ছবি : বাসস

প্রান্তিক, অনগ্রসর, সুবিধাবঞ্চিত এবং প্রতিবন্ধীদের জীবনমান উন্নয়নে অবদানের জন্য পাঁচজন ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানকে ‘মাদার অব হিউম্যানিটি’ সমাজকল্যাণ পদক দেবে সরকার। তবে এই পদকের নাম থেকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাঁর নাম বাদ দিয়েছেন। সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের প্রস্তাবিত নাম ছিল ‘শেখ হাসিনা মাদার অব হিউম্যানিটি’ সমাজকল্যাণ পদক। গতকাল সোমবার সচিবালয়ে মন্ত্রিসভার নিয়মিত বৈঠকে এসংক্রান্ত নীতিমালার অনুমোদন দেওয়া হয়।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত বৈঠকে ‘মাদার অব হিউম্যানিটি সমাজকল্যাণ পদক নীতিমালা, ২০১৮’ এর খসড়া অনুমোদন দেওয়া হয়। মন্ত্রিপরিষদসচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম পরে সাংবাদিকদের বলেন, ‘মাদার অব হিউম্যানিটি বলতে প্রধানমন্ত্রীকে বোঝানো হয়েছে। আন্তর্জাতিক অঙ্গনে তাঁকে যে মাদার অব হিউম্যানিটির স্বীকৃতি দেওয়া হয়েছে, সেটার প্রতিফলন হিসেবে।’

মিয়ানমারের রাখাইনে নিপীড়নের মুখে পালিয়ে আসা লাখ লাখ রোহিঙ্গাকে বাংলাদেশে আশ্রয় দেওয়ায় গত বছর যুক্তরাজ্যভিত্তিক ‘চ্যানেল ফোর’ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ‘মাদার অব হিউম্যানিটি’ অভিধায় ভূষিত করে।

এই পুরস্কারের নীতিমালা অন্যান্য জাতীয় পুরস্কারের মতোই জানিয়ে শফিউল আলম বলেন, পাঁচজন ব্যক্তি ও সংস্থাকে প্রতিবছরের ২ জানুয়ারি সমাজকল্যাণ দিবসে এই পদক দেওয়া হবে।

মন্ত্রিপরিষদসচিব বলেন, পুরস্কারপ্রাপ্তদের ১৮ ক্যারেট মানের ২৫ গ্রাম সোনায় তৈরি একটি পদক, মাদার অব হিউম্যানিটি সমাজকল্যাণ পদকের রেপ্লিকা, দুই লাখ টাকার চেক এবং সম্মাননা সনদ দেওয়া হবে। এ জাতীয় পুরস্কার স্বাধীনতা পদক, একুশে পদকের সমমানের হবে বলেও জানান তিনি।

প্রতিবছর কারা পুরস্কার পাবেন তা ঠিক করতে জেলা পর্যায়ে জেলা প্রশাসকের (ডিসি) নেতৃত্বে একটি এবং জাতীয় পর্যায়ে মন্ত্রিসভার জ্যেষ্ঠ মন্ত্রীর নেতৃত্বে একটি কমিটি থাকবে।

একটি সূত্র জানায়, ‘শেখ হাসিনা মাদার অব হিউম্যানিটি সমাজকল্যাণ পদক’ থেকে প্রধানমন্ত্রী তাঁর নাম প্রত্যাহার প্রসঙ্গে বলেন, ‘নাম নয়, মানুষের জন্য কাজ করে যাব—এটাই আমার প্রতিজ্ঞা। আর আমি নামের জন্য কোনো কাজ করি না।’



মন্তব্য