kalerkantho


ট্রেনে কাটা পড়ে দুজনের পা বিচ্ছিন্ন

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৫ নভেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



রাজধানীর খিলগাঁওয়ে গতকাল বুধবার সকালে মোছাম্মৎ লাবু (২২) নামের এক তরুণী ট্রেনের নিচে পড়ে এক পা ও আরেক পায়ের কিছু অংশ হারিয়েছেন। দুর্ঘটনার শিকার তরুণী লাবুর কেউ নেই। ছোটবেলায় তাঁকে রেললাইন থেকে পেয়েছিলেন শাহ আলম নামের এক ব্যক্তি। তখন থেকেই তাঁর বাসায় থেকে তিনি বড় হন।

সূত্র জানায়, গতকাল সকাল সাড়ে ১০টার দিকে খিলগাঁও রেলগেটসংলগ্ন শাহ আলমের চায়ের দোকানে যাচ্ছিলেন লাবু। চায়ের দোকানের সামনে দিয়ে রেললাইন গেছে। রেললাইন পার হওয়ার সময় টঙ্গীর দিকে যাওয়া ট্রেনের নিচে পড়ে যান তিনি। এ ঘটনায় তাঁর বাঁ পায়ের ঊরু এবং ডান পায়ের গোড়ালি ও তিনটি আঙুল কেটে বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়।

পরে তাঁকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা দিয়ে তাঁকে পঙ্গু হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়। রাতে তাঁকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল থেকে পঙ্গু হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়।

গত রাতে শাহ আলম বলেন, ‘এই মেয়ের বাড়ি চট্টগ্রামে। তাকে ১৫ বছর আগে খিলগাঁও এলাকায় রেললাইনে শুয়ে কাঁদতে দেখতে পাই। পরে তাকে বাসায় নিয়ে লালনপালন করি। মেয়েটা ছোট থেকেই মানসিক ভারসাম্যহীন। এখনো সে ওই রকমই আছে। যাকেই দেখে তাকেই মামা বলে ডাকে। টাকা চায়।’

এদিকে গতকাল সকালে মালিবাগ রেলগেট এলাকায় ট্রেনের নিচে কাটা পড়ে মো. জহির খান (৪৫) নামের এক পোশাক শ্রমিকের এক পা বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে।

জহিরের ভাই ছগির খান বলেন, জহির সকালে মাদারটেক নন্দিপাড়ার বাসা থেকে কাজের উদ্দেশ্যে মগবাজার যাচ্ছিলেন।



মন্তব্য