kalerkantho


বাঁশখালীতে নির্মাণাধীন বিদ্যুৎকেন্দ্র

চাঁদাবাজদের কেড়ে নিতে হামলা পুলিশসহ আহত ৫

বাঁশখালী (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি   

২৪ অক্টোবর, ২০১৮ ০০:০০



বাঁশখালীর গণ্ডামারায় নির্মাণাধীন ১৩২০ মেগাওয়াট ক্ষমতার কয়লাবিদ্যুৎ কেন্দ্রে চাঁদাবাজির সময় আটক দুই ব্যক্তিকে ছাড়িয়ে নিতে হামলা চালানো হয়েছে। দুর্বৃত্তরা গত সোমবার রাত ৮টা থেকে রাত ২টা পর্যন্ত কয়েক দফা সশস্ত্র হামলা চালায়। এ সময় গুলিবিদ্ধ হয়ে আহত হয় দুই কনস্টেবল, দুই চাঁদাবাজসহ পাঁচজন। পুলিশের গাড়িসহ ভাঙচুর করেছে প্রকল্পের চারটি গাড়ি। হামলার সময় পুলিশ ১০ রাউন্ড এবং সন্ত্রাসীরা অন্তত ২০ রাউন্ড গুলি ছোড়ে। আহতরা হচ্ছেন কনস্টেবল মো. আশিক (২০) ও ইসমাইল (২৮), গাড়িচালক মো. আইয়ুব (২৮) এবং এলাকার বাসিন্দা মো. খালেক (২০) ও শাহাদাৎ ( ২৮)। ওই ঘটনায় ৭০ থেকে ৮০ জনকে আসামি করে দুটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। এলাকায় চাপা উত্তেজনা বিরাজ করছে।

কয়লাবিদ্যুৎ কেন্দ্রের দায়িত্বরত নৌবাহিনীর কর্মকর্তা মো. জহিরুল ইসলাম বলেন, নির্মাণাধীন কয়লাবিদ্যুৎ কেন্দ্রের তিন কিলোমিটার রাস্তার কাজ চলছে। স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য মো. আনছারের ছেলে মো. শাহাদাৎ ও আমান উল্লাহর ছেলে মো. খালেক চাঁদা চেয়ে না পেয়ে কাজে বাধা দেয়। এ খবর পুলিশকে জানানো হলে পুলিশ গত সোমবার রাত ৮টায় ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে শাহাদাৎ ও খালেককে আটক করে সদর থানায় নিয়ে যাচ্ছিল। এ সময় পুলিশকে লক্ষ্য করে আনছার ও আমান উল্লাহর লোকজন বৃষ্টির মতো গুলি ছোড়ে। গুলিতে খালেক, শাহাদাৎসহ দুই পুলিশ আহত হয়। দুর্বৃত্তরা কয়েক দফা হামলা চালিয়েও আটক দুজনকে ছিনিয়ে নিতে ব্যর্থ হয়েছে বলে কর্তৃপক্ষ জানায়। চাঁদাবাজ খালেকের বাবা আমান উল্লাহ এলাকায় ডাকাত আমান নামেও পরিচিত।



মন্তব্য