kalerkantho


কলেজছাত্র মনির হত্যা মামলা

মানিকগঞ্জে ৪ জনের ফাঁসি

মানিকগঞ্জ প্রতিনিধি   

২৩ অক্টোবর, ২০১৮ ০০:০০



কলেজছাত্র মনির হোসেন হত্যা মামলার রায়ে চারজনের ফাঁসি ও একজনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। গতকাল সোমবার দুপুরে মানিকগঞ্জ জেলা ও দায়রা জজ শহিদুল আলম ঝিনুক এ রায় প্রদান করেন। ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্তরা হলো বাদশা, লাল মিয়া, আনোয়ার ও আজগর। যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ও ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয় আজাহার হোসেনকে। এদের মধ্যে আনোয়ার, আজগর ও আজাহার হোসেন পলাতক রয়েছে। মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে মনির হোসেন মানিকগঞ্জের শিবালয় উপজেলার শিমুলিয়া গ্রামের পরোশ আলীর ছেলে। মানিকগঞ্জ আওলাদ হোসেন কলেজের একাদশ শ্রেণির ছাত্র ছিল মনির। ঘটনার সময় পরোশ আলী বিদেশে ছিলেন। সেনাবাহিনীতে চাকরি দেওয়ার কথা বলে ২০১৫ সালের ৯ সেপ্টেম্বর গ্রামের পরিচিত বাদশা মিয়া সাভারে ডেকে নেয় মনির হোসেনকে। সেখানে আরো কয়েকজনের সঙ্গে মিলে নৌকায় তুলে মনিরের হাত-পা ইটের সঙ্গে বেঁধে জীবন্ত অবস্থায় নদীতে ফেলে দেয়। তার আগে মোবাইল ফোনে মনিরের কান্নাকাটির শব্দ রেকর্ড করা হয়। পরের দিন মোবাইল ফোনে মনিরের মা মালেকা বেগমকে কান্নাকাটির শব্দ শুনিয়ে ২০ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে হত্যাকারীরা।

মনিরের মা ২০১৫ সালের ১১ সেপ্টেম্বর বাদশা মিয়াকে সন্দেহভাজন আসামি করে মানিকগঞ্জ থানায় মামলা করেন। পরে মোবাইল ফোন ট্র্যাকিং করে পুলিশ গ্রেপ্তার করে বাদশা মিয়াকে। তার দেওয়া তথ্য মতে সিংগাইরের শহীদ রফিক সেতুর কাছ থেকে মনিরের লাশ উদ্ধার করা হয়। ২০১৫ সালের ৫ অক্টোবর মানিকগঞ্জের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে এক নম্বর আসামি বাদশা ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিতে হত্যার কথা স্বীকার করে হত্যাকাণ্ডের বর্ণনা দেয়। তদন্ত শেষে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা মানিকগঞ্জ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. আমিনুর রহমান ২০১৬ সালের ১৯ এপ্রিল আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন।



মন্তব্য