kalerkantho


২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা

রায় বাতিল করে নতুন তদন্ত দাবি বিএনপির

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৭ অক্টোবর, ২০১৮ ০০:০০



রায় বাতিল করে নতুন তদন্ত দাবি বিএনপির

২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার রায়কে ‘রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত’ আখ্যা দিয়ে তা বাতিল করার এবং নতুন করে তদন্তের দাবি জানিয়েছে বিএনপি। দলের সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবীর রিজভী গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে এক সংবাদ সম্মেলনে এ দাবি জানান।

রিজভী বলেন, ‘রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার রায় বাতিল করতে হবে। একই সঙ্গে আওয়ামী লীগ নেতা ও নৌকার মনোনয়নপ্রত্যাশী কাহ্হার আকন্দকে বাদ দিয়ে নিরপেক্ষভাবে পুনঃতদন্ত করে পুনরায় বিচার কার্যক্রম শুরুর জোর দাবি জানাচ্ছি।’

রিজভী আরো বলেন, ‘বিএনপি সরকারের সময় বাংলাদেশ পুলিশি রাষ্ট্র ছিল না। অবারিত ছিল গণতন্ত্র। ফলে রাজধানীতে জনসভার জন্য সিটি করপোরেশনের কাছ থেকে অনুমতি গ্রহণের পর নিয়ম ছিল মাইক ব্যবহারের অনুমতি নিতে হতো পুলিশের কাছ থেকে। মূল চার্জশিট দাখিলকারী কর্মকর্তা এএসপি ফজলুল কবির জবানবন্দি প্রদানকালে ২০০৪ সালের ২১ আগস্ট সমাবেশে পুলিশের অনুমতি না দেওয়ার কথা বলেন।’ তিনি বলেন, ‘প্রশ্নাতীতভাবে সত্য যে, পুলিশ ২০০৪ সালের ১৯ আগস্ট তাদের অনুমতি দিয়েছিল।’

রিজভী বলেন, ‘মুক্তাঙ্গনে সমাবেশ করার ঘোষণা দিয়ে আওয়ামী লীগ তিন দিন ধরে প্রচার-প্রচারণা চালাল, আর ২১ আগস্ট সমাবেশের দিন হঠাৎ সিদ্ধান্ত বদল করে কেন দলীয় অফিসের সামনে গেল? এতে কারো বুঝতে বাকি থাকে না, এর মধ্যে কোনো দুরভিসন্ধি কাজ করেছে। পুলিশ যখন দেখল তাদের না জানিয়ে সমাবেশ করছে তখন মতিঝিল থানার ওসি নিয়মমাফিক একটি জিডি করেন। অল্প সময় হাতে পেলেও পুলিশের নিয়ম অনুযায়ী পুলিশ সেখানে যায়। মামলার বিচারিক কার্যক্রমে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ এ বিষয়টি বিবেচনায় আনা হয়নি অথচ ফরমায়েশি রায় চাপিয়ে দেওয়া হলো।’

ওই সময় দিনাজপুর, নারায়ণগঞ্জ, সিলেট, সাতক্ষীরা, ভোলা, মৌলভীবাজার, বগুড়া, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ, কুষ্টিয়া, বরিশাল উত্তরসহ কয়েকটি জেলায় দলীয় নেতাকর্মীদের গ্রেপ্তারের চিত্র তুলে ধরেন রিজভী।

নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন দলের নেতা মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, আব্দুস সালাম, মুহাম্মদ মুনির হোসেন প্রমুখ।

 



মন্তব্য