kalerkantho


৮০০০ রোহিঙ্গার পরিচয় নিশ্চিত করেছে মিয়ানমার

রাখাইনে বাড়ি নির্মাণে ঢাকার গুরুত্বারোপ

কূটনৈতিক প্রতিবেদক   

১৬ অক্টোবর, ২০১৮ ০০:০০



বাংলাদেশে পাঠানো তালিকার ভিত্তিতে মিয়ানমার এ পর্যন্ত প্রায় আট হাজার রোহিঙ্গার পরিচয় নিশ্চিত করেছে। রোহিঙ্গাদের প্রথম ব্যাচ মিয়ানমারে ফেরার আগে রাখাইনে তাদের বাড়িঘর নির্মাণের ওপর গুরুত্ব দিচ্ছে বাংলাদেশ। পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী গতকাল সোমবার বিকেলে ঢাকায় রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন পদ্মায় সাংবাদিকদের বলেন, আশ্রিত রোহিঙ্গারা বাংলাদেশ থেকে মিয়ানমারে গিয়ে প্রথমে অভ্যর্থনাকেন্দ্রে থাকবে। এরপর তারা তাদের গ্রামে যাবে।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘আমি প্রথম থেকে বলছি মিয়ানমার সরকারকে, বাড়ি যদি না তৈরি হয় তবে থাকবে কোথায়? অন্তত প্রথম যে ব্যাচটা যাবে, আমরা যাদের পাঠাব, তারা গিয়ে যেন বাড়িতে থাকতে পারে এবং জীবনযাত্রা শুরু করতে পারে। কারণ তা না হলে তো জিনিসটা ভালো হবে না।’

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, মিয়ানমারও এর গুরুত্ব বুঝতে পেরেছে। চলতি মাসের শেষ দিকে মিয়ানমারের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের স্থায়ী সচিবের (পররাষ্ট্রসচিব) নেতৃত্বে যৌথ ওয়ার্কিং গ্রুপের মিয়ানমার প্রতিনিধিদল বাংলাদেশে আসবে। তারা যৌথ ওয়ার্কিং গ্রুপের বাংলাদেশ প্রতিনিধিদলের সঙ্গে বৈঠক করবে এবং সবাই মিলে কক্সবাজারে রোহিঙ্গা শিবিরে যাবে।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী জানান, মিয়ানমার যাদের পরিচয় নিশ্চিত করেছে তাদের এখন গ্রাম অনুযায়ী তালিকা মেলানো হচ্ছে। আগামী দিনেও মিয়ানমারের কাছ থেকে পরিচয় নিশ্চিত করা আরো তালিকা আসবে। গত সেপ্টেম্বর মাসে চীন, বাংলাদেশ ও মিয়ানমারের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও জাতিসংঘ মহাসচিব নিউ ইয়র্কে যে বৈঠক করেছেন সেখানেও রাখাইনে রোহিঙ্গাদের জন্য বাড়িঘর নির্মাণের বিষয়ে আলোচনা হয়েছে। ভারত ও চীন রাখাইনে রোহিঙ্গাদের জন্য বাড়িঘর নির্মাণ করছে।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, রাখাইনে রোহিঙ্গাদের জন্য কতসংখ্যক বাড়ি নির্মাণ করা হয়েছে তা বাংলাদেশ এখনো জানে না। বাংলাদেশ এ বিষয়ে জানতে চেয়েছে।



মন্তব্য