kalerkantho


শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ী নৌপথ

সীমিত আকারে ফেরি চললেও সংকট কাটেনি

শিবচর (মাদারীপুর) প্রতিনিধি   

২৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ী নৌপথে নাব্যতা সংকট এবং লৌহজং টার্নিংয়ে  বড় ধরনের চর জেগে উঠায় ১৫ ঘণ্টা ফেরি বন্ধ থাকার পর কয়েকটি ফেরি হালকা যানবাহন নিয়ে গতকাল মঙ্গলবার সকাল থেকে চলাচল শুরু করেছে। হালকা যানবাহন নিয়েও মঙ্গলবার দুপুরে ‘ফেরি কুমিল্লা’ প্রায় এক ঘণ্টা ডুবোচরে আটকে ছিল। খননকাজে নিয়োজিত বিআইডাব্লিউটিএ কর্মকর্তারা এ পরিস্থিতিকে সবচেয়ে সংকটময় বলে দাবি করেছেন। এদিকে অচলাবস্থার কারণে  উভয় ঘাটে অ্যাম্বুল্যান্স, যাত্রীবাহী বাসসহ সাত শতাধিক যানবাহন আটকে রয়েছে।

বিআইডাব্লিউটিসিসহ একাধিক সূত্রে জানা যায়, গত ২৪ ঘণ্টায় পদ্মা নদী শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ী অংশে ৩০ সেন্টিমিটার পানি কমেছে। গত রবিবার রাতেই বন্ধ করে দেওয়া হয় রো রো ফেরি। সোমবার সকাল থেকে আট-নয়টি ফেরি কোনোমতে হালকা যানবাহন নিয়ে চললেও বিকেলে সব ফেরি বন্ধ হয়ে যায়। ১৫ ঘণ্টা পর মঙ্গলবার সকাল ৮টা থেকে চার-পাঁচটি ছোট মাঝারি কে-টাইপ ফেরি চলাচল শুরু করলেও সেগুলো কোনোমতে হালকা যানবাহন নিয়ে চলতে গিয়েও হিমশিম খাচ্ছে। লৌহজং টার্নিংয়ে তীব্র স্রোত থাকায় ড্রেজার স্থাপন কঠিন হয়ে পড়ায় সংকট বাড়ছে।

বিআইডাব্লিউটিসি কাঁঠালবাড়ী ঘাট সহকারী ম্যানেজার রুহুল আমিন বলেন, ‘বন্ধ থাকার প্রায় ১৫ ঘণ্টা পর আজ (গতকাল) সকাল থেকে সীমিত আকারে ফেরি চলাচল শুরু হয়েছে। হালকা যানবাহন নিয়ে চলাচলেও ফেরিগুলো ডুবোচরে আটকে যাচ্ছে।’

বিআইডাব্লিউটিএর নির্বাহী প্রকৌশলী আ স ম মাশরেকুল আরেফিন বলেন, একদিকে পদ্মায় দ্রুত পানি কমছে, অন্যদিকে বিপুল পরিমাণ পলি স্রোতের সঙ্গে এসে লৌহজং টার্নিং মুখে পড়ছে। এতে সবচেয়ে সংকটময় পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। আমরা দুটি চ্যানেল তৈরি করছি।

এদিকে গোয়ালন্দ (রাজবাড়ী) প্রতিনিধি জানান, রাজবাড়ীর গোয়ালন্দের দৌলতদিয়া ঘাটে ফেরি পারের অপেক্ষায় রয়েছে ঢাকাগামী যাত্রীবাহী বাস, পণ্যবাহী ট্রাক ও কাভার্ডভ্যানসহ শত শত বিভিন্ন গাড়ি। এতে গতকাল মঙ্গলবার ফেরিঘাটের জিরোপয়েন্ট থেকে দৌলতদিয়া-খুলনা মহাসড়কের বাংলাদেশ হ্যাচারিজ পর্যন্ত চার কিলোমিটার রাস্তায় যানজট দেখা দেয়। বিআইডাব্লিউটিসির স্থানীয় অফিস সূত্র জানিয়েছে, নাব্যতা সংকটের কবলে পড়ে শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ী নৌপথে ফেরি পারাপার বন্ধ রয়েছে। ওই নৌপথের গাড়িগুলো এখন দৌলতদিয়া ঘাট হয়ে ফেরি পার হচ্ছে। এ কারণে ঢাকাগামী বিভিন্ন গাড়ির অতিরিক্ত চাপ বেড়ে দৌলতদিয়া ঘাটে দীর্ঘ যানজট সৃষ্টি হয়েছে।

এদিকে পদ্মা নদীর পানি দিন দিন কমছে। পাশাপাশি নদীতে বয়ে যাওয়া প্রবল ঘূর্ণিস্রোতের তীব্রতাও আগের চেয়ে অনেকটা কমেছে। তাই চলাচলকারী ফেরিগুলো স্বাভাবিক গতিতে চলতে পারায় গত কয়েক দিন দৌলতদিয়া ঘাট যানজটমুক্ত ছিল। তখন দক্ষিণাঞ্চল থেকে ছেড়ে আসা ঢাকাগামী যাত্রীবাহী বাস, পণ্যবাহী ট্রাকসহ বিভিন্ন গাড়ি দৌলতদিয়া ঘাটে পৌঁছে সেগুলো সরাসরি ফেরিতে গিয়ে উঠেছে। এদিকে নাব্যতা সংকটের পাশাপাশি নদীখনন কাজের কারণে গত সোমবার বিকেল ৩টা থেকে শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ী নৌপথে ফেরি পারাপার বন্ধ করে দেয় বিআইডাব্লিউটিসি কর্তৃপক্ষ। এ কারণে ওই নৌপথের গাড়িগুলো এখন দৌলতদিয়া ঘাট হয়ে ঢাকাসহ বিভিন্ন গন্তব্যে যাচ্ছে। তাই অতিরিক্ত গাড়ির চাপ বেড়ে যাওয়ায় গত সোমবার সন্ধ্যা থেকে দৌলতদিয়া ঘাটে দীর্ঘ যানজট সৃষ্টি হয়।



মন্তব্য