kalerkantho


সিলেটে প্রবাসীর বাড়িতে ডাকাতি, নারী কেয়ারটেকার খুন

সিলেট অফিস   

২৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



সিলেটের দক্ষিণ সুরমা উপজেলায় এক প্রবাসীর বাড়িতে ডাকাতিকালে ওই বাড়ির নারী কেয়ারটেকার আছিয়া খাতুন (৩৫) খুন হয়েছেন। গত রবিবার রাত ৮টার দিকে উপজেলার মোগলাবাজার ইউনিয়নের হরগরিপুর গ্রামের আমেরিকাপ্রবাসী আবু বকরের বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। আছিয়া একই উপজেলার সিলাম গ্রামের মাখন মিয়ার স্ত্রী।

পুলিশ ও স্থানীয় লোকজন জানায়, গ্রামের আবু বকর ও হেলাল আহমদ দুই ভাই পরিবার নিয়ে আমেরিকা থাকেন। একটু নির্জন এলাকার বাড়িটিতে আছিয়া বেগম তাঁর দুই কিশোর ছেলেকে নিয়ে তিন বছর ধরে কেয়ারটেকার হিসেবে বসবাস করে আসছেন। এর মধ্যে বড় ছেলে সিলেট নগরের একটি দোকানে কাজ করে।

নিহতের ছোট ছেলে সুমন আহমদ জানায়, ঘটনার দিন তার ভাই নগরীতে থাকায় সে ও তার মা বাড়িতে ছিল। সন্ধ্যার পর চার-পাঁচজন লোক তাদের ঘরে ঢুকে তার হাত ও মুখ বেঁধে ফেলে। অপর কক্ষে তার মাকেও বেঁধে ফেলে। এ সময় তার মাকে তারা গালাগাল করে। একপর্যায়ে সাড়াশব্দ না পেয়ে সুমন হাত ও পায়ের বাঁধন খুলে পেছনের দরজা দিয়ে কোনোভাবে বের হয়ে এসে আশপাশের মানুষকে ঘটনা জানায়। পরে প্রতিবেশীরা এসে দেখে খাটের ওপর তার মায়ের নিথর দেহ পড়ে আছে। তাঁর মুখে বালিশ ও কাঁথা দিয়ে চাপা দেওয়া ছিল। খাটের খুঁটির সঙ্গে হাত-পা বাঁধা অবস্থায় পাওয়া যায়। ঘরের সব আসবাবপত্র তছনছ করা। ঘরে চার-পাঁচ হাজার টাকা ছিল। টাকাসহ মূল্যবান জিনিসপত্র ডাকাতরা নিয়ে যায়।

গ্রামবাসী জানায়, নিহত আছিয়া প্রথমে জৈন্তাপুরের চিকনাগুল গ্রামের একজনকে বিয়ে করেন। দুটি ছেলে রেখে স্বামী মারা যাওয়ার পর তিনি দক্ষিণ সুরমার সিলাম গ্রামের মাখন মিয়াকে বিয়ে করেন। মধ্যপ্রাচ্যে থাকা স্বামী মাখনের সঙ্গে তাঁর নিয়মিত যোগাযোগ ছিল।

মোগলাবাজার থানার ওসি আব্দুল কাইয়ুম চৌধুরী জানান, খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে রবিবার রাত ১২টার দিকে লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠায়। পরে মরদেহ পরিবারের সদস্যদের কাছে হস্তান্তর করা হয় জানিয়ে ওসি বলেন, এ ঘটনায় নিহতের ভাই আবুল হোসেন বাদী হয়ে আজ (সোমবার) দুপুরে থানায় মামলা করেছেন। ঘাতকদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

 

 



মন্তব্য