kalerkantho


সাগরে ট্রলারডুবি

আট জেলের মৃত্যুর খবর এখনো নিখোঁজ ৪৮

শরণখোলা (বাগেরহাট) ও পাথরঘাটা (বরগুনা) প্রতিনিধি   

২৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



ঝড়ের কবলে পড়ে বঙ্গোপসাগরে ট্রলার ডুবে আট জেলের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। তাদের বাড়ি বাগেরহাটের শরণখোলা উপজেলায়। ডুবে যাওয়া ট্রলারটির অন্য জেলেরা গত শনিবার গভীর রাতে ফিরে আসার পর এই খবর জানা যায়।

অন্যদিকে বরগুনার পাথরঘাটা উপজেলার তিনটি ট্রলারসহ ৪৮ জেলে এখনো নিখোঁজ রয়েছে। গতকাল রবিবার পর্যন্ত ১৫২ জেলেকে উদ্ধার করা হয়েছে। তাদের বাড়ি বরগুনা, পিরোজপুর ও বাগেরহাটে।

গত বুধবার গভীর রাত থেকে শুক্রবার সকাল পর্যন্ত ঝড়ের কবলে পড়ে গভীর সমুদ্রে বেশ কয়েকটি মাছ ধরার ট্রলার ডুবে যায়।

আট জেলের মৃত্যুর খবর : বুধবার রাত ৩টার দিকে বঙ্গোপসাগরের ১ নম্বর ফেয়ারওয়ে বয়ার কাছে ঝড়ে এফবি মারিয়া-১ নামের ট্রলারটি ডুবে যায়। ওই ট্রলারে ১৭ জেলে ছিল। তাদের মধ্যে ৯ জন শনিবার রাতে ফিরে আসে। তারা জানায়, ঢেউয়ের আঘাতে তাদের ট্রলারটি যখন ডুবে যায় তখন কেবিনে ছিল আটজন। অন্যরা ছিল বাইরে। তারা বয়া আঁকড়ে ধরে সাগরে ভাসতে ভাসতে ভারতের একটি দ্বীপে গিয়ে ওঠে। অন্যদের খুঁজে পায়নি। তারা ধরে নিয়েছে, ওই আটজনের মৃত্যু হয়েছে। তারা হলো শরণখোলার কোন্তাকাটা ইউনিয়নের রাজৈর গ্রামের ছোমেদ ফরাজীর (৭০) দুই ছেলে আনোয়ার ফরাজী ও কামরুল ফরাজী, একই গ্রামের আশরাফুল গাজী, শহিদুল হাওলাদার, ডাবলু হাওলাদার, রাজাপুর গ্রামের মোদাচ্ছের হাওলাদার, নলবুনিয়া গ্রামের রিয়াজ হাওলাদার ও উত্তর তাফালবাড়ী গ্রামের আলমগীর হোসেন।

ছোমেদ ফরাজীর আরেক ছেলে এফবি মারিয়া-১ ট্রলারের মালিক ও প্রধান মাঝি শহিদুল ফরাজী (৩৫) ফিরে এসেছেন। ফিরে আসা অন্য জেলেদের মধ্যে ট্রলারের দ্বিতীয় মাঝি রাজৈর গ্রামের কবির হাওলাদার ট্রলারডুবির বর্ণনা দেন। তিনি বলেন, শুক্রবার রাত সাড়ে ৩টা বা ৪টার দিকে তাঁরা ভারতের সীমানায় কেতুয়ার চরে ওঠেন। পরে সেখানকার এফবি সূর্যসেন নামের একটা ট্রলার তাঁদের উদ্ধার করে। ওই ট্রলারের মাঝি রবীন দাস তাঁদের প্রাথমিক চিকিৎসা ও খেতে দেন।

কবির আরো জানান, ঝড়ের কবলে পড়ে ভারতের ওই এলাকায় ভেসে যাওয়া শরণখোলার এফবি সাগর-১ নামের একটি ট্রলারে তাঁদের ৯ জনকে শনিবার সকালে তুলে দেওয়া হয়। শনিবার রাতে তাঁরা মোংলা এসে পৌঁছেন। এ ছাড়া সেখানে জেলেদের আশ্রয়ে থাকা ভোলার চরফ্যাশন উপজেলার নূরাবাদ এলাকার আরো ১৪ জেলেকে শরণখোলার অন্য ট্রলার এফবি আজমীর শরীফ ১-এ তুলে দেওয়া হয়।

মোংলা কোস্ট গার্ড পশ্চিম জোনের অপারেশন কর্মকর্তা লেফটেন্যান্ট জাহিদ আল হাসান কালের কণ্ঠকে বলেন, বাহিনীর সদস্যরা উদ্ধার অভিযান চালিয়ে যাচ্ছেন।

৪৮ জেলে এখনো নিখোঁজ : সাগরে ট্রলারডুবির ঘটনায় চার দিন পর দুটি ট্রলারসহ ৩৯ জেলের সন্ধান পাওয়া গেছে ভারতে। গতকাল ভোরের দিকে ওই দেশের দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলার ঝাউতলা এলাকা থেকে তারা ট্রলার নিয়ে রওনা দিয়েছে। আজ সোমবার সন্ধ্যা নাগাদ তারা পাথরঘাটায় পৌঁছতে পারে। তবে এখনো নিখোঁজ রয়েছে তিনটি ট্রলার ও ৪৮ জেলে।

সমুদ্রের ফেয়ারওয়ে বয়া, নারিকেলবাড়িয়া, দুবলাসহ একাধিক স্থানে অন্তত ৯টি ট্রলার ডুবে যায়। শনিবার ভাসমান ১১৩ জেলেকে উদ্ধার করা হয়। এ নিয়ে এখন পর্যন্ত ১৫২ জন জেলে উদ্ধার হলো।

বরগুনা জেলা মৎস্যজীবী ট্রলার মালিক সমিতির সভাপতি গোলাম মোস্তফা চৌধুরী জানান, নিখোঁজদের মধ্যে পাথরঘাটার জসিমের এফবি মা ট্রলারের ১৭ জন, হারুন হাওলাদারের এফবি তানজিলা ট্রলারের ১১, ছগির পহলানের এফবি আরমান ট্রলারের চার এবং মহিপুরের জাকিরের এফবি জাহানারা ট্রলারের ১৬ জন নিখোঁজ রয়েছে।

নৌবাহিনীর লেফটেন্যান্ট ফরিদ বলেন, ‘আমাদের টিম সার্বক্ষণিক উদ্ধার তৎপরতা চালাচ্ছে।’

কোস্ট গার্ডের পশ্চিম জোনের অপারেশন অফিসার লেফটেন্যান্ট মাহমুদ আলীও সাগরে বাহিনীর উদ্ধার তৎপরতার কথা জানান।

 



মন্তব্য