kalerkantho


বঙ্গবন্ধু মেডিক্যালে সেমিনারে তথ্য

প্রতি হাজারে সাতজনের চর্মরোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



হাতুড়ে ডাক্তারের অপচিকিৎসা, ভুল চিকিৎসা, অবৈজ্ঞানিক ওষুধ সেবন কিংবা অপ্রয়োজনীয় লেজার সার্জারির কারণে চর্মরোগ নিরাময় কঠিন হয়ে পড়ছে। এ ব্যাপারে রোগীদের যেমন সচেতন হতে হবে তেমনি সরকারি পর্যায় থেকেও কার্যকর উদ্যোগ নেওয়া জরুরি। বাংলাদেশের প্রতি হাজারে সাতজনের এই রোগের প্রবণতা রয়েছে। গতকাল রবিবার বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের চর্ম ও যৌনব্যাধি বিভাগের উদ্যোগে ঢাকা ক্লাবের স্যামসন এইচ চৌধুরী লাউঞ্জে চর্মরোগ বিষয়ে এক বৈজ্ঞানিক সেমিনার বিশেষজ্ঞরা এ তথ্য জানান।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক। বিশেষ অতিথি ছিলেন স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় প্রতিমন্ত্রী মো. মসিউর রহমান রাঙ্গা। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য (গবেষণা ও উন্নয়ন) এবং চর্ম ও যৌনব্যাধি বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. মো. শহীদুল্লাহ সিকদারের সভাপতিত্বে এ অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য দেন বাংলাদেশ মেডিক্যাল অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি ডা. মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন, বাংলাদেশ ডার্মাটোলজিক্যাল সোসাইটির সভাপতি অধ্যাপক এ কিউ এম সেরাজুল ইসলাম, মহাসচিব অধ্যাপক এহসানুল কবির জগলুল, সহযোগী অধ্যাপক ডা. মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম ভূঁইয়া, ইউনিমেড ইউনিহেলথের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এম মোসাদ্দেক হোসেন প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা বৈজ্ঞানিক প্রবন্ধের ওপর আলোচনায় জানান, বাংলাদেশে চর্মরোগের ক্ষেত্রে আধুনিক চিকিৎসার মাধ্যমে অনেক সাফল্য অর্জন করা হয়েছে। তারপরও চর্ম রোগের চিকিৎসায় অধিকতর গবেষণা ও কার্যকর ব্যবস্থা আরো জোরালো করা দরকার। সেই সঙ্গে রোগের কারণ, লক্ষণ ও চিকিৎসার ক্ষেত্রে আরো বেশি জনসচেতনতা তৈরি করতে হবে।



মন্তব্য