kalerkantho


পিআরআইর সেমিনারে বক্তারা

বিদ্যমান রাষ্ট্রনীতি পরিবেশ সুরক্ষায় সহায়ক নয়

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



অর্থনৈতিকভাবে শক্তিশালী হওয়ার প্রক্রিয়ায় সব দেশেই পরিবেশ দূষণের মাত্রা বেড়ে থাকে। উন্নয়নের পথে বাংলাদেশেও এখন পরিবেশ দূষণ বাড়ছে। অথচ বাংলাদেশে দূষণ রোধে রাষ্ট্রীয় নীতি সহায়ক নয়। প্রণোদনা, করকাঠামো, ভর্তুকি, সরকারি ব্যয়—এসবের কোনো কোনো ক্ষেত্রে পরিবেশ-ভাবনা দুর্বল সেসব একেবারেই ভাবা হয়নি। পরিবেশের সঙ্গে সম্পর্কিত বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের ব্যবস্থাপনায় অদক্ষতার বিষয়টি স্পষ্ট।

পরিবেশের সঙ্গে রাজস্ব সম্পর্ক বিষয়ক এক সেমিনারে বিশেষজ্ঞ বক্তারা এসব বিষয় তুলে ধরেছেন। একই সঙ্গে তাঁরা পরিবেশের সঙ্গে সম্পর্কিত বিভিন্ন সেবা ও পণ্যে অতিরিক্ত করারোপের মাধ্যমে পরিবেশ দূষণ নিরুৎসাহিত করার পরামর্শ দিয়েছেন। এ জন্য রাজস্ব খাতে ব্যাপক সংস্কারের কথাও বলেছেন তাঁরা।

রাজধানীর গুলশানের আমারি হোটেলে গতকাল বৃহস্পতিবার এই সেমিনারের আয়োজন করে বেসরকারি গবেষণা সংস্থা পলিসি রিসার্স ইনস্টিটিউট (পিআরআই)। ‘অ্যানুয়াল ডিসিমিনেশন ইভেন্ট’ শীর্ষক এই আয়োজনে সহায়তা দিয়েছে যুক্তরাজ্যভিত্তিক ইকোনমিক ডায়ালগ অন গ্রিন গ্রোথ (ইডিজিজি) ও ইন্টারন্যাশনাল সেন্টার ফর ক্লাইমেট চেঞ্জ অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট (আইসিসিসিএডি)। পিআরআই চেয়ারম্যান ড. জায়েদি সাত্তারের সঞ্চালনায় এতে ‘বাংলাদেশে পরিবেশসম্মত রাজস্ব সংস্কার বিষয়ে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন সংস্থার ভাইস চেয়ারম্যান ড. সাদিক আহমেদ। সেমিনারে প্রধান অতিথি ছিলেন সাধারণ অর্থনীতি বিভাগের সদস্য এবং সিনিয়র সচিব ড. শামসুল আলম। এ ছাড়া বিভিন্ন সংস্থা ও প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিরা সেমিনারে উপস্থিত ছিলেন।

ড. শামসুল আলম বলেন, টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এসডিজি) অর্জনে অন্তর্ভুক্তিমূলক উন্নয়নের পাশাপাশি পরিবেশের প্রতিকূলতার প্রভাব মোকাবেলায় সক্ষমতার কথাও বলা হয়েছে। এ জন্য পরিবেশ রক্ষায় সরকার বদ্বীপ প্রকল্পের মতো শত বছর মেয়াদি প্রকল্প হাতে নিয়েছে। সরকারের ভালো ভালো আইন ও নীতি থাকা সত্ত্বেও বাস্তবায়নে জটিলতার কথা স্ব্বীকার করে তিনি বলেন, বাস্তবায়নে গতি আনতে প্রশাসনিক সংস্কার প্রয়োজন। রাজনৈতিক সদিচ্ছা ছাড়া এটা সম্ভব নয়।

ইনস্টিটিউট ফর ইনক্লুসিভ ফাইন্যান্স অ্যান্ড ডেভেলপমেন্টের (আইএনএম) নির্বাহী পরিচালক ড. মুস্তফা কে মুজেরি বলেন, পরিবেশের জন্য রাজনৈতিক অর্থনীতি বড় বাধা। এ জন্য রাজনৈতিক প্রভাবের বিষয়টিও মাথায় রাখতে হবে।

আইসিসিসিএডি পরিচালক ড. সালীমুল হক বলেন, আগে উৎপাদন তারপর পরিবেশ ভাবনা—এই ভুল ভাবনা থেকে যত দ্রুত সম্ভব বেরিয়ে আসতে হবে। পরিবেশ রক্ষায় বিনিয়োগকে ব্যয় নয় বরং মুনাফা ভাবতে হবে।

 



মন্তব্য