kalerkantho


পানিতে ডুবে তিন স্থানে চারজনের মৃত্যু

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



পানিতে ডুবে গতকাল মঙ্গলবার গোপালগঞ্জে দাদি-নাতি ও নড়াইলের কালিয়ায় স্কুলছাত্র এবং গত সোমবার সন্ধ্যায় ফরিদপুরের ভাঙ্গায় এক স্কুলছাত্রের মৃত্যু হয়েছে। বিস্তারিত আমাদের নিজস্ব প্রতিবেদক ও প্রতিনিধিদের পাঠানো প্রতিবেদনে—

গোপালগঞ্জ শহরের চেচানিয়াকান্দি এলাকায় পুকুরে ডুবে দাদি-নাতির মৃত্যু হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে এ ঘটনা ঘটে। মৃত দুজন হলো শুভাষিণী বৈদ্য (৫০) ও চমক বৈদ্য (৪)।

জানা গেছে, বাড়ির পাশের পুকুরে নাতিকে নিয়ে শুভাষিণী গোসল করতে যান। এ সময় নাতি পানিতে ডুবে যায়। তাকে উদ্ধারে তিনি পানিতে ঝাঁপ দিলে দুজনই ডুবে যায়।

নড়াইলের কালিয়া উপজেলার নবগঙ্গা নদীতে বন্ধুদের সঙ্গে সাঁতার কাটতে গিয়ে নীরব হোসেন (১৪) নামের এক স্কুলছাত্র নিখোঁজ হয়। গতকাল দুপুরে এ ঘটনা ঘটে। শাহবাগ ইউনাইটেড একাডেমির নবম শ্রেণির ছাত্র নীরব উপজেলার যাদবপুর গ্রামের আলমিস হোসেনের ছেলে। সে উপজেলার ফুলদাহ গ্রামে নানা বাড়িতে থেকে লেখাপড়া করত।

জানা গেছে, তিন বন্ধু নবগঙ্গা নদীতে সাঁতার কাটতে যায়। একপর্যায়ে নীরব নদীর ঘূর্ণির মধ্যে পড়ে তলিয়ে যায়। পরে ইঞ্জিনচালিত নৌকা নিয়ে স্থানীয় লোকজন অনেক খোঁজাখুঁজি করেও তার সন্ধান পায়নি।

কালিয়া থানার এসআই আব্দুস সুবর বলেন, নিখোঁজ নীরবকে উদ্ধারের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

ফরিদপুরের ভাঙ্গা উপজেলায় কুমার নদে ট্রলারে করে ঘুরতে গিয়ে তিন ট্রলারের সংঘর্ষে নদে পড়ে গিয়ে সোহান খান (১৪) নামের এক স্কুলছাত্রের মৃত্যু হয়েছে। গত সোমবার সন্ধ্যায় ভাঙ্গা কোর্টপাড়ভাঙ্গা বাজারসংলগ্ন সেতুর কাছে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

সোহান খান পাশের নগরকান্দা উপজেলার কাইচাইল ইউনিয়নের জিয়াকুলি গ্রামের বাসিন্দা ব্যবসায়ী নুর আলম খানের ছেলে। সে ভাঙ্গা পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির ছাত্র ছিল। ভাঙ্গা কলেজপাড়া দাঁড়িয়ারমাঠ এলাকায় মায়ের সঙ্গে একটি ভাড়া বাসায় থেকে পড়াশোনা করত সে।

 

 



মন্তব্য