kalerkantho


বন্দি সোহাগের মুক্তির নির্দেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



ঢাকার চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে নিষ্পত্তি হওয়া একটি মামলায় খালাসপ্রাপ্ত আসামি সোহাগ। কিন্তু নথির ভুলে আটক হয়ে ২০ দিন ছিলেন কারাগারে। অবশেষে গতকাল সোমবার তাঁর মুক্তির নির্দেশ মিলেছে। জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত নম্বর-৫-এর বিচারক আতিকুল ইসলাম মুক্তির এই নির্দেশ দেন।

সোহাগের আইনজীবী মো. মীর হোসেন জানান, দোকানে চুরির চেষ্টাসংক্রান্ত আশুলিয়া থানার একটি মামলার আসামি ছিলেন সোহাগ। রায়ে তিনি খালাস পেয়েছেন। কিন্তু তাঁর বিরুদ্ধে ভুলক্রমে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা ইস্যু হওয়ায় গ্রেপ্তার করা হয়। সোমবার আবেদন করা হলে আদালত তাঁকে মুক্তি দেওয়ার নির্দেশ দেন। তবে আসামি চাঁদপুর কারাগারে থাকায় সেখানে আদেশ পৌঁছাতে দু-এক দিন সময় লাগবে।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, চুরির মামলায় ২০০৯ সালের ৩ জুন জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত আসামি সোহাগকে এক বছরের কারাদণ্ড দেন। আপিল করলে ঢাকার অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ ফাতেমা নজীব ২০১১ সালের ২২ মে তাঁকে বেকসুর খালাস দেন। অথচ ২০১৬ সালের ৪ জানুয়ারি জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত থেকে সোহাগের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করা হয়।



মন্তব্য