kalerkantho


ড. কামাল বললেন

জামায়াত থাকলে বিএনপির সঙ্গে ঐক্য নয়

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১২ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



গণফোরামের সভাপতি ড. কামাল হোসেন বলেছেন, জামায়াত থাকলে তাঁর দল কোনো ঐক্যপ্রক্রিয়ায় যাবে না। গতকাল মঙ্গলবার সকালে রাজধানীর জাতীয় প্রেস ক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন। জামায়াতকে রেখে বিএনপির সঙ্গে ঐক্যপ্রক্রিয়ার ব্যাপারে ড. কামাল হোসেন বলেন, ‘সারা জীবনে করিনি, শেষ জীবনে করতে যাব কেন? ওরা তো এখন দলও না। নিবন্ধন বাতিল করা হয়েছে।’

সাম্প্রতিক সময়ে সাদা পোশাকে শিক্ষার্থীদের তুলে নেওয়াসহ দেশের বর্তমান রাজনৈতিক পরিবেশের সমালোচনা করে ড. কামাল বলেন, আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী নিজেদের পরিচয় না দিয়ে সাদা পোশাকে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা ছাড়াই শিক্ষার্থীদের তুলে নিয়ে যাচ্ছে। তুলে নেওয়ার বিষয়টি পরে অস্বীকার করছে, ২৪ ঘণ্টার মধ্যে আদালতে সোপর্দও করছে না। এটা অত্যন্ত উদ্বেগের বিষয়। এসব ঘটনা দেশের প্রচলিত আইন ও সংবিধানবিরোধী। তিনি বলেন, আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর কার্যক্রম দেখে মনে হচ্ছে দেশের আইনগুলোকে বাদ দেওয়া হয়েছে। সম্প্রতি ১২ শিক্ষার্থীকে ধরার কথা প্রথমে অস্বীকার করলেও কয়েক দিন পর তাদের রিমান্ডে নেওয়ার আবেদন করেছে। এটা কোনো সরকারি বিধান হতে পারে না।

ড. কামাল বলেন, ‘বিশেষ সময়ে বিশেষ কারণে একবার-দুইবার এ ধরনের ঘটনা ঘটতে পারে। কিন্তু শিক্ষার্থী এবং সাধারণ জনগণকে তুলে নেওয়া এখন নিয়মিত ব্যাপার হয়ে দাঁড়িয়েছে। কিছু লোক আবার গুম হয়ে যাচ্ছে। তুলে নেওয়ার পর অনেকে বাড়ি ফিরে আসে। কিন্তু তারা আর কোনো কথা বলে না। তাদের এমন কথা বলা হয়, যাতে তারা কখনোই মুখ খুলে না। দেশে তো একটা সাংবিধানিক শাসন আছে, তাই না? এটা তো আর রাজতন্ত্র না যে রাজা যা বলবেন, তা-ই হবে।’

বাংলাদেশের সংবিধান প্রণেতা ড. কামালের মতে, শিক্ষার্থীদের কেন রিমান্ডে নেওয়া হলো, কেন অ্যারেস্ট করা হলো, তা এখনো পরিষ্কার না। তিনি বলেন, ‘পত্রিকায় দেখলাম পুলিশ মৃত ব্যক্তিকে ককটেল ছুড়তে দেখেছে। মামলার বাদী নিজেও আসামিকে চেনেন না, অথচ আসামি কারাগারে। এগুলো বন্ধ হওয়া উচিত। এগুলো সর্বোচ্চ আদালতের নজরে আনতে হবে। বোঝাতে হবে সরকার বেআইনিভাবে ক্ষমতার অপপ্রয়োগ করছে। আমরা চাই, নির্বাচন হোক। তবে নির্বাচনের জন্য যেই পরিস্থিতি থাকা প্রয়োজন বর্তমানে তার উল্টোটা হচ্ছে’।



মন্তব্য