kalerkantho


সেমিনারে তথ্য

হাসপাতালে ১৫ হাজার মৃত্যুর কারণ নিরূপণ

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১০ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



দেশের সরকারি-বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রোগীর মৃত্যুর সঠিক কারণ চিহ্নিত করার উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। প্রাথমিকভাবে ১১টি বড় হাসপাতালে প্রায় ১৫ হাজার মৃত্যুর কারণ নিরূপণ করা হয়েছে। গতকাল রবিবার রাজধানীতে এক সেমিনারে এই তথ্য জানানো হয়েছে।

বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে আয়োজিত এই সেমিনারে প্রধান অতিথি ছিলেন স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী জাহিদ মালেক। মন্ত্রিপরিষদসচিব মোহাম্মদ সফিউল আলমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সেমিনারে জানানো হয়, সরকারের মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের আওতায় টেকনিক্যাল সাপোর্ট ফর সিআরভিএস সিস্টেম ইমপ্রুভমেন্ট অব বাংলাদেশ প্রকল্পের আওতায় হাসপাতালগুলোতে মৃত্যুর যথাযথ কারণ নিরূপণের উদ্যোগ নেওয়া হয়। ব্লুমবার্গ ডাটা ফর হেলথ এবং মেলবোর্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের আর্থিক ও কারিগরি সহায়তায় এই কার্যক্রম পরিচালনা করা হয়।

অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য দেন মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সচিব (সমন্বয় ও সংস্কার) এন এম জিয়াউল আলম, অতিরিক্ত সচিব এ কে মহিউদ্দিন আহম্মেদ, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব বাবলু কুমার সাহাসহ অন্যরা।

স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেন, জনস্বাস্থ্যব্যবস্থা, দেশে রোগের প্রকোপসহ বিভিন্ন বিষয়ে সুনির্দিষ্ট দিকনির্দেশনার জন্যই হাসপাতালে মৃত্যুর সঠিক কারণ নিরূপণ করাটা জরুরি। এ ক্ষেত্রে বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থারও তাগিদ রয়েছে।

অতিরিক্ত সচিব বাবলু কুমার সাহা কালের কণ্ঠকে বলেন, আগে হাসপাতালে কেউ মারা গেলে যে পন্থায় ডেথ সার্টিফিকেট দেওয়া হতো, তা ছিল অনেকটাই দায়সারা। তা বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থার গাইডলাইন অনুসারে হতো না। ফলে নানা ধরনের জটিলতা দেখা দিত।

 



মন্তব্য