kalerkantho


ডায়াবেটিক সমিতির সংবাদ সম্মেলন

মা ও শিশু স্বাস্থ্য উন্নয়নে ‘গর্ভধারণপূর্ব সেবা’ কার্যক্রম শুরু

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি   

৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



মা ও শিশু স্বাস্থ্যের উন্নয়নে ডায়াবেটিস রোগ প্রতিরোধে দেশব্যাপী ‘সুস্থ মা, সুস্থ শিশু, সমৃদ্ধ দেশ সকল গর্ভধারণ হোক পরিকল্পিত’ বিষয়ক সামাজিক সচেতনতামূলক কার্যকম শুরু হয়েছে। কার্যক্রমের আওতায় ডায়াবেটিসের ঝুঁকি কমাতে ‘গর্ভধারণ পূর্ব সেবা’ প্রকল্প চালু হয়েছে।

গতকাল শুক্রবার সকালে বাংলাদেশ ডায়াবেটিক সমিতির মিলনায়তনে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানানো হয়। অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ ডায়াবেটিক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক এ কে আজাদ খান, ওয়ার্ল্ড ডায়াবেটিক ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান অনিল কাপুর, বাংলাদেশ ডায়াবেটিক সমিতির মহাসচিব মো. সাইফুদ্দিন, রমনা রোটারি ক্লাবের সদস্য সারোয়ার কামাল, গর্ভধারণপূর্ব সেবা প্রকল্পের পরিচালক ডা. বিশ্বজিত ভৌমিক প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, বাংলাদেশ ডায়াবেটিক সমিতির অধিভুক্ত হাসপাতালে ৫০টি গর্ভধারণপূর্ব সেবা কর্নার চালু করা হয়েছে। কর্নারগুলোতে গর্ভধারণে সক্ষম মহিলারা প্যাকেজের মাধ্যমে প্রয়োজনীয় শারীরিক পরীক্ষা, রক্ত পরীক্ষা, প্রস্রাব পরীক্ষা করাতে পারবেন। গর্ভধারণপূর্ব সেবা নিশ্চিত করতে ডায়াবেটিক সমিতি প্যাকেজের মূল্য এক হাজার থেকে কমিয়ে ৬০০ টাকা করা হয়েছে। প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত কাজিরা বিয়ের অনুষ্ঠানে নব দম্পতিদের গর্ভধারণপূর্ব স্বাস্থ্যসেবা নেওয়ার ব্যাপারে পরামর্শ দেবেন। ফলে গর্ভধারণের আগেই ডায়াবেটিসের ঝুঁকি কমানো যাবে। এতে মা ও শিশু উভয়ই সুস্থ থাকবে।

অধ্যাপক এ কে আজাদ খান বলেন, “‘গর্ভধারণের পূর্বে সেবা’ প্রকল্পটি বাস্তবায়নে গণজোয়ারের মতো উদ্যোগ নিতে হবে। এ জন্য গর্ভধারণের পূর্বেই অল্প কিছু পদক্ষেপ নিলে সহজেই ডায়াবেটিসের ঝুঁকি এড়ানো সম্ভব। এই প্রকল্পের আওতায় আমরা সে কাজটিই করেতে চাচ্ছি। এতে মা সুস্থ থাকবে, পাশাপাশি সুস্থ শিশু জন্ম নিবে।”

অনিল কাপুর বলেন, এটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ প্রকল্প। গর্ভধারণ মায়ের জন্য নানা ধরনের ঝুঁকি তৈরি করে।

 

 



মন্তব্য