kalerkantho


রাতারগুলে দখলদারদের হামলা পুলিশের গুলি, আহত ৬

সিলেট অফিস   

৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



সিলেটের গোয়াইনঘাট উপজেলায় অবস্থিত দেশের একমাত্র জলাবন রাতারগুলে দখল হয়ে যাওয়া জমি উদ্ধার এবং ওই জমিতে গাছ লাগানোকে কেন্দ্র করে দখলদারদের হামলায় সিলেট বন বিভাগের এক রেঞ্জ কর্মকর্তা ও দুই বনরক্ষী আহত হয়েছেন। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ গুলি ছুড়লে গ্রামবাসীর তিনজন আহত হন। গতকাল বুধবার সকালে এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, রাতারগুল জলাবনের দুই পাশের দখল হওয়া প্রায় ২০১ একর জমি সম্প্রতি উদ্ধার করে বন বিভাগ। উদ্ধার হওয়া জমিতে বনায়নের উদ্যোগ নেওয়া হয়। গত মঙ্গলবার সকালে বনের পাশে মহেশখেড় এলাকায় ১৩১ একর জমিতে ৪৫ জন শ্রমিক ১০ হাজার মুর্তা বেতগাছের চারা লাগায়। এর পরই স্থানীয় কিছু প্রভাবশালী লোক দলবল নিয়ে এসব চারা উপড়ে ফেলে। এ অবস্থায় গতকাল সকালে স্থানীয় ভূমি প্রশাসন, পুলিশ নিয়ে বন বিভাগের কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে যান এবং ফের চারা রোপণ শুরু করেন। এ সময় দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে স্থানীয় দখলদারদের অনুসারীরা তাঁদের ওপর হামলা চালায়। এতে আহত হন বন বিভাগের সারী রেঞ্জ কর্মকর্তা সাদ উদ্দিন, বনরক্ষী শুভ্র আহমদ (৩১) ও আক্কাস আলী (৩২)।

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ গুলি ছোড়ে। এতে হামলাকারীদের তিনজন গুলিবিদ্ধ হন। তাঁরা হলেন আলিম উদ্দিন (২৫), আবদুন নুর (২৫) ও আরিফ উদ্দিন (২২)।

তবে গুলিবিদ্ধদের অবস্থা আশঙ্কাজনক নয় বলে জানিয়েছেন গোয়াইনঘাট থানার ওসি মো. আবদুল জলিল। তিনি জানান, একজনের পেটে ও অন্য দুজনের পায়ে ছররা গুলি লেগেছে। তাদের সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিক্যাল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

বন বিভাগের সারী রেঞ্জ কর্মকর্তা সাদ উদ্দিন বলেন, ‘দীর্ঘদিন ধরে ওই এলাকার মক্তার মিয়া, সাব্বির, আলাউদ্দিন, শফাতসহ ২০-২৫ জনের একটি চক্র রাতারগুল জলারবন এলাকা দখল করতে চায়। এরই ধারাবাহিকতায় রাতারগুল জলারবনে রোপণকৃত গাছ ও চারা ওই চক্র উপড়ে ফেলে।’

সিলেট বিভাগীয় বন কর্মকর্তা আর এস এম মুনিরুল ইসলাম হামলার ঘটনা ও রেঞ্জ কর্মকর্তাসহ তিনজনের আহতের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, ‘আহতদের চিকিৎসার জন্য সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।’ চিকিৎসকদের বরাত দিয়ে তিনি বলেন, ‘সাদ উদ্দিন মাথায় আঘাত পেয়েছেন। তাঁর অবস্থা আশঙ্কাজনক।’

গোয়াইনঘাট থানার ওসি আব্দুল জলিল বলেন, ‘ঘটনার পর এখন এলাকার পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।’

 



মন্তব্য