kalerkantho


‘বন্দুকযুদ্ধে’ দুই জেলায় দুই মাদক কারবারি নিহত

ফেনী ও শরীয়তপুর প্রতিনিধি   

৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ শরীয়তপুরে ও ফেনীতে দুজন নিহত হয়েছে। আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর ভাষ্য অনুযায়ী, দুজনই মাদক কারবারি। গত সোমবার শরীয়তপুরের পালং-ছয়গাঁও সড়কে পুলিশের সঙ্গে এবং গতকাল মঙ্গলবার রাতে ফেনীর ফেনী সদর উপজেলার ধর্মপুর এলাকায় র‌্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধের’ এ ঘটনা ঘটে।

নিহত দুজন হলেন সুমন পাহাড় (২৬) ও মোহাম্মদ সুমন ওরফে লাল সুমন (৩৬)।

পালং থানার ওসি মনিরুল ইসলাম বলেন, নিহত সুমন পাহাড় একজন চাঁদাবাজ ও মাদক কারবারি। তাঁর বিরুদ্ধে চাঁদাবাজি ও মাদকের ১১টি মামলা রয়েছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, সুমন শরীয়তপুর পৌরসভার ৫ নম্বর ওয়ার্ডের এসকেন পাহাড়ের ছেলে। দুই দিন আগে থেকে তাঁর খোঁজ পাওয়া যাচ্ছিল না। গতকাল সকালে তাঁর নিহত হওয়ার সংবাদ পায় পরিবারের সদস্যরা।

পুলিশ জানায়, কয়েকজন মাদক কারবারি পালং-ছয়গাঁও রাস্তার পাশে অবস্থান করছে বলে সোমবার রাতে সংবাদ পাওয়া যায়। রাত আড়াইটার দিকে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ ও পালং থানা যৌথ অভিযান চালায় সেখানে। স্থানীয় মেহগনি বাগানের ভেতরে অবস্থান করা মাদক কারবারিরা পুলিশকে লক্ষ্য করে ককটেল ও গুলি ছোড়ে। পুলিশ পাল্টা গুলি ছুুড়লে মাদক কারবারিরা পালিয়ে যায়। ঘটনাস্থলে তল্লাশি চালালে সুমন পাহাড়ের গুলিবিদ্ধ লাশ পাওয়া যায়। সেখানে ৫১ পিস ইয়াবা, ১ কেজি গাঁজা, ছয়টি ককটেল ও একটি মোটরসাইকেল পাওয়া গেছে।

র‌্যাব-৭ ফেনী ক্যাম্পের অধিনায়ক শাফায়াত জামিল ফাহিম জানিয়েছেন, সদরের সুলতানপুর এলাকায় মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১০টায় র‌্যাব-৭-এর টহলদলের সঙ্গে মাদক কারবারিদের গোলাগুলি হয়। এ সময় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের তালিকাভুক্ত কুখ্যাত মাদক কারবারি ওই এলাকার মাদু মিয়ার ছেলে সুমন নিহত হন।



মন্তব্য