kalerkantho


সোনা চোরাচালানিচক্রের আরো ৬ সদস্য গ্রেপ্তার

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



অবৈধ সোনাসহ আন্তর্জাতিক চোরাচালানিচক্রের আরো ছয় সদস্যকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব। গত রবিবার নরসিংদীর পাঁচদোনা এলাকায় চেকপোস্ট বসিয়ে দুটি দূরপাল্লার বাসে তল্লাশি চালিয়ে তাঁদের গ্রেপ্তার করা হয়। এ সময় তাঁদের কাছ থেকে প্রায় ১৪ কেজি সোনা জব্দ করা হয় বলে জানিয়েছেন র‌্যাব-৩-এর পরিচালক রাহাত হারুন খান।  

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন তানভীর আহম্মেদ (২৫), জামাল হোসেন (২২), রাজু আহম্মেদ (৩০), আবুল হাসান (৩৫), আলাউদ্দিন (৩২) ও রাজু হোসেন (২৩)। এঁদের প্রত্যেকের কাছে ২০টি করে স্বর্ণের বার ছিল। যার আনুমানিক মূল্য ছয় কোটি টাকা।

গতকাল সোমবার সকালে র‌্যাবের কারওয়ান বাজার মিডিয়া সেন্টারে এ বিষয়ে ব্রিফিংয়ের আয়োজন করা হয়। সেখানে দাবি করা হয়, গ্রেপ্তারকৃতরা সবাই আন্তর্জাতিক সোনা চোরাচালানচক্রের বাহক হিসেবে কাজ করতেন। সিলেট থেকে ঢাকায় সোনার বার পৌঁছে দিলেই একেকজনকে নগদ ১৪ হাজার টাকা দেওয়া হতো। এভাবে ছয় সদস্যের সঙ্গে ৮৪ হাজার টাকায় চুক্তি করে সিলেট থেকে তাঁদের ঢাকায় পাঠানো হয়। ১৪ কেজি সোনা ছাড়াও তাঁদের কাছ থেকে ১৩টি মোবাইল ফোন উদ্ধার করা হয়েছে।

ব্রিফিংয়ে র‌্যাব-৩-এর পরিচালক রাহাত হারুন খান জানান, দীর্ঘদিন ধরে এঁরা অবৈধভাবে সোনা চোরাচালান করে আসছিলেন। চোরাচালানের মাধ্যমে তাঁরা বিপুল পরিমাণ সোনা সীমান্ত দিয়ে পার্শ্ববর্তী দেশেও পাচার করতেন।

গোপন সংবাদের ভিত্তিতে খবর পেয়ে র‌্যাব-৩-এর একটি দল রবিবার দুপুরে নরসিংদীর পাঁচদোনা এলাকায় ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে চেকপোস্ট বসিয়ে দূরপাল্লার বাস থামিয়ে তল্লাশি চালায়। বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে ওই রুট দিয়ে আসা এনা পরিবহনের একটি বাসে তল্লাশি চালিয়ে প্রথমে সন্দেহভাজন তিনজনকে আটক করা হয়। এরপর তাঁদের প্যান্টের গোপন পকেট থেকে ৬০টি সোনার বার জব্দ করা হয়। পরে তাদের তথ্য মতে, একই রুটের গ্রিন লাইন পরিবহনের অন্য একটি বাসে তল্লাশি চালিয়ে তাঁদের সহযোগী আরো তিনজনের শরীরে তল্লাশি চালানো হয়। এ সময় তাঁদের কাছ থেকে আরো ৬০টি সোনার বার পাওয়া যায়।

 



মন্তব্য