kalerkantho


ভাঙ্গায় জাফর উল্যাহ ও এমপি সমর্থকদের সংঘর্ষ, আহত ৫০

নিজস্ব প্রতিবেদক, ফরিদপুর   

২ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



ফরিদপুরের ভাঙ্গায় গতকাল শনিবার আওয়ামী লীগ সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও সাবেক সংসদ সদস্য কাজী জাফর উল্যাহ এবং স্থানীয় সংসদ সদস্য (স্বতন্ত্র) মজিবুর রহমান নিক্সন চৌধুরীর সমর্থকদের সংঘর্ষে পুলিশসহ অর্ধশতাধিক লোক আহত হয়েছে। এ সময় দুটি দোকান ও পাঁচটি বাড়ি ভাঙচুরের ঘটনা ঘটেছে। ফরিদপুর থেকে অতিরিক্ত পুলিশ গিয়ে সকাল সাড়ে ১০টার দিকে গুলি ছুড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। গতকাল ভোর ৬টা থেকে সকাল সাড়ে ১০টা পর্যন্ত উপজেলার ঘারুয়া ইউনিয়নের হাজরাকান্দা গ্রামে দফায় দফায় এ হামলা ও পাল্টা হামলার ঘটনা ঘটে।

পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, আধিপত্য নিয়ে ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক ও কাজী জাফর উল্যাহর সমর্থক বুলবুল আহমেদের (৩৭) সঙ্গে ওই গ্রামের বাসিন্দা ৯ নম্বর ওয়ার্ডের সাবেক ইউপি সদস্য ও সংসদ সদস্য নিক্সন চৌধুরীর সমর্থক জুলহাস মাতুব্বরের (৫৮) বিরোধ চলছিল।

ঈদুল আজহার আগে দুই পক্ষের সমর্থকদের মধ্যে ক্ষেত থেকে পাট কাটা এবং গত বুধবার বিকেলে স্থানীয় হাজরাকান্দা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে ফুটবল খেলা নিয়ে দুই পক্ষের সমর্থকদের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছিল। এ বিরোধের জেরে গতকাল ভোর ৬টা থেকে দুই পক্ষের কয়েক শ সমর্থক লাঠি, ইট, ঢাল, সড়কিসহ বিভিন্ন দেশীয় অস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এতে উভয় পক্ষের অর্ধশতাধিক লোক আহত হয়। এ সময় ভাঙ্গা থানার উপপরিদর্শক (এসআই) হাবিবুর রহমান শেখও আহত হন। তাঁদের ভাঙ্গা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ও মাদারীপুরের রাজৈর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। পরে ফরিদপুর থেকে অতিরিক্ত পুলিশ গিয়ে শটগানের সাতটি ফাঁঁকা গুলি ছুড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

সংঘর্ষের সময় দুটি দোকান ও পাঁচটি বাড়িতে হামলা হয়।

ভাঙ্গা থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মিরাজ হোসেন জানান, দুই পক্ষের আধিপত্য বিস্তার নিয়ে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় কোনো পক্ষ থেকে গতকাল সন্ধ্যা পর্যন্ত থানায় অভিযোগ করেনি। ওই এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।

 



মন্তব্য