kalerkantho


শামীম ওসমানের উদ্যোগ

না.গঞ্জে ঈদের বৃহত্তম জামাত হতে যাচ্ছে

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি   

২১ আগস্ট, ২০১৮ ০০:০০



নারায়ণগঞ্জে আগামীকাল বুধবার অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে পবিত্র ঈদুল আজহার বৃহত্তম জামাত। নারায়ণগঞ্জ কেন্দ্রীয় ঈদগাহ ময়দান, ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ পুরাতন সড়ক ও পাশের এ কে এম সামসুজ্জোহা স্টেডিয়ামকে একত্র করে ওই জামাতের উদ্যোক্তা নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য শামীম ওসমান। এরই মধ্যে এর প্রস্তুতি প্রায় শেষ পর্যায়ে। ঈদের জামাত শুরু হবে সকাল সাড়ে ৮টায়। এই ঈদ জামাত ঘিরে মুসল্লিদের নিরাপত্তায় পুলিশ প্রশাসন বিশেষ পরিকল্পনা নিয়েছে।

শামীম ওসমান এ ব্যাপারে গণমাধ্যমকে বলেন, ‘আল্লাহর রহমতে নারায়ণগঞ্জের ইতিহাসে আমরা সবচেয়ে বড় ঈদের জামাত করতে যাচ্ছি। শিল্পনগরী নারায়ণগঞ্জের ঈদগাহ এত ছোট যে সেখানে তিন-চার হাজারের বেশি মুসল্লির স্থান সংকুলান হয় না। বাকি মুসল্লিরা নামাজ আদায় করেন রাস্তায়। এবার প্রায় দেড় লাখ বর্গফুট জায়গাজুড়ে সামিয়ানা টানানো হচ্ছে। এর সঙ্গে ঈদগাহকেও যোগ করা হয়েছে। আগামীতে ওসমানী স্টেডিয়াম, এ কে এম সামসুজ্জোহা স্টেডিয়াম, ঈদগাহ ও রাস্তা মিলে ঈদের জামাতের আয়োজন করা হবে। সে ক্ষেত্রে তা হবে দেশের অন্যতম বৃহত্তর ঈদ জামাত।’

এর আগে ১২ আগস্ট নারায়ণগঞ্জ ক্লাবে ইমাম ও মাদরাসা প্রধানদের নিয়ে মতবিনিময় সভা হয়। সেখানে উপস্থিত অতিথিরা এমপি শামীম ওসমানের উদ্যোগে নারায়ণগঞ্জ কেন্দ্রীয় ঈদগাহ ও পাশের এ কে এম সামসুজ্জোহা স্টেডিয়ামে বৃহৎ জামাত আয়োজনে একমত পোষণ করেন।

খ্যাতিসম্পন্ন ইসলামী চিন্তাবিদ মাওলানা ফেরদাউসুর রহমান এ ব্যাপারে হাদিস ও বিভিন্ন কিতাবের বরাত দিয়ে বলেন, ‘আমাদের রাসুল (সা.) ঈদগাহে গিয়ে নামাজ আদায় করতেন।’ তিনি কয়েকটি হাদিসের ব্যাখ্যা দিয়ে বলেন, ‘বিভিন্ন স্থানে ছোট ছোট অনেক জামাত না করে বড় জামাতের চেষ্টা করা উত্তম।’

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ডিএসবি) ফারুক হোসেন জানান, জামাত সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন হওয়া ও মুসল্লিদের নিরাপত্তা বিধানে বিশেষ পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। ঈদগাহ মাঠের সাতটি গেটে থাকবে মেটাল ডিটেক্টর। পুরো ঈদগাহের চারপাশ সিসি ক্যামেরার আওতায় আনা হয়েছে। মাঠে পোশাকধারী ও সাদা পোশাকে ১৭৫ জন পুলিশ সদস্য নিয়োজিত থাকবে। থাকবে মোবাইল টিম ও র‌্যাবের টহল। তিনি মুসল্লিদের শুধু জায়নামাজ সঙ্গে নিয়ে আসার অনুরোধ করেন।



মন্তব্য