kalerkantho


ওয়ার্কার্স পার্টির নেতারা বললেন

বিএনপি-জামায়াত উন্নয়ন নস্যাতের ষড়যন্ত্র করছে

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৯ আগস্ট, ২০১৮ ০০:০০



২৬ বছর আগে যে অপশক্তি কমরেড রাশেদ খান মেননকে হত্যার চেষ্টা করেছিল সেই সাম্প্রদায়িক বিএনপি-জামায়াত সন্ত্রাসবাদের মাধ্যমে চলমান উন্নয়ন অগ্রযাত্রা ব্যাহত করার ষড়যন্ত্র করছে। অসাম্প্রদায়িক মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী রাজনৈতিক শক্তি পরাজিত হলে পরাজিত হবে বাংলাদেশ। কমরেড মেননের মতো প্রগতিশীল মুক্তচিন্তার লাখো মেননকে হত্যা করা হবে। গতকাল বিকেলে বিএমএ মিলনায়তনে ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেননকে হত্যাচেষ্টার ২৬তম বার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত এক আলোচনাসভায় দলটির নেতারা এসব কথা বলেন। ১৯৯২ সালের ১৭ আগস্ট মেননকে হত্যাচেষ্টার দিনটিকে সন্ত্রাস প্রতিরোধ দিবস হিসেবে পালন করে ওয়ার্কার্স পার্টি।

আলোচনাসভায় সভাপতির বক্তব্যে ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক ফজলে হোসেন বাদশা বলেন, ‘ষড়যন্ত্রের জন্য বিএনপি-জামায়াত প্রস্তুত। তারা সুযোগ পেলেই ষড়যন্ত্র করছে। সাম্প্রতিক সময়ে কোমলমতি কিশোর আন্দোলনেও আমরা তাদের ষড়যন্ত্র প্রত্যক্ষ করলাম। অতএব ষড়যন্ত্র প্রতিহত করতে আমাদের আরো বেশি প্রস্তুত হতে হবে।’

তিনি বলেন, ‘সমদূরত্বের কথা বলে যেসব বামপন্থী বন্ধু জামায়াত-বিএনপিকে জায়গা করে দিতে চায় তাদের সেই সমদূরত্বের রাজনীতির সঙ্গে ওয়ার্কার্স পার্টি নেই। আমরা জনগণের সংগ্রামে যেমন পাশে থাকব, তেমনি জঙ্গিবাদী অপশক্তির বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ লড়াই চালিয়ে যাব।’

আলোচনাসভায় বক্তব্য দেন ওয়ার্কার্স পার্টির পলিটব্যুরোর সদস্য আনিসুর রহমান মল্লিক, ড. সুশান্ত দাস, মাহমুদুল হাসান মানিক, হাজেরা সুলতানা, সাম্যবাদী দলের সাধারণ সম্পাদক দিলীপ বড়ুয়া, গণতন্ত্রী পার্টির সাধারণ সম্পাদক শাহাদত হোসেন, বাসদের আহ্বায়ক রেজাউর রশীদ প্রমুখ।

উল্লেখ্য, ১৯৯২ সালের ১৭ আগস্ট রাজধানীর তোপখানা রোডে ওয়ার্কার্স পার্টি কার্যালয়ের সামনে পার্টির তৎকালীন সাধারণ সম্পাদক রাশেদ খান মেননকে হত্যার উদ্দেশ্যে গুলি করা হয়।

 



মন্তব্য