kalerkantho


ধামরাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স

অবেদনবিদ নেই তালাবদ্ধ ওটি

ধামরাই (ঢাকা) প্রতিনিধি   

১৬ আগস্ট, ২০১৮ ০০:০০



অবেদনবিদ (অ্যানেসথেটিস্ট) না থাকায় ঢাকার ধামরাইয়ে ৫০ শয্যাবিশিষ্ট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের অস্ত্রোপচার কক্ষ (ওটি) পাঁচ মাস ধরে বন্ধ রয়েছে। এতে বিপাকে পড়েছে ছয় লাখ জনগোষ্ঠী অধ্যুষিত এই উপজেলার দরিদ্র প্রসূতি নারীরা।

হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রসূতিদের সিজারিয়ান অস্ত্রোপচারের জন্য রয়েছে একটি অত্যাধুুনিক ওটি। রয়েছে উন্নতমানের আধুনিক যন্ত্রপাতি এবং একাধিক গাইনি বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক। ২০০৯ সাল থেকে প্রতি মাসে ২০ থেকে ২৫টি করে প্রসূতি অস্ত্রোপচার হতো। গত সোমবার ধামরাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের দ্বিতীয় তলায় গিয়ে দেখা যায়, ওটির দরজায় ঝুলছে তালা।

চিকিৎসা নিতে আসা প্রসূতি সালেহা বেগম বলেন, ‘সিজার কইর‌্যা সন্তান প্রসব করাইতে অইব বলে ডাক্তার জানাইয়া দিছে। অজ্ঞানের ডাক্তার (অবেদনবিদ) না থাকায় আমারে অন্য হাসপাতালে যাইতে কইছে ডাক্তাররা। অন্য হাসপাতালে গেলে তো আমার অনেক ট্যাহা লাগব। এ ট্যাহা আমি পামু কোন জাগায়?’

 

আরেক প্রসূতি রাবেয়া বলেন, ‘ইচ্ছা ছিল এ হাসপাতালে সিজার হব। কিন্তু তা সম্ভব হচ্ছে না।’

এ বিষয়ে ধামরাই উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মো. ফজলুল হক বলেন, ‘গত মার্চে অবেদনবিদ বদলি হয়ে গেছেন। বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে প্রতি মাসেই দু-একবার জানানো হয়। কিন্তু কাউকে পদায়ন করা হয়নি। ফলে পাঁচ মাস ধরে সিজার কার্যক্রম বন্ধ রয়েছে।’

এ বিষয়ে ঢাকা জেলা সিভিল সার্জন ডা. মোহাম্মদ এহসানুল করিম বলেন, ‘অনেকবার মন্ত্রণালয়ে জানানো হয়েছে। কিন্তু নতুন বিসিএসের নিয়োগ না হলে পদায়ন করা হবে না বলে তারা জানিয়ে দিয়েছে।’

 

 



মন্তব্য