kalerkantho


সাভারে নিরাপদ সড়কের দাবিতে বিক্ষোভ

সাবেক এমপিসহ ৫০০ ব্যক্তির বিরুদ্ধে মামলা

নিজস্ব প্রতিবেদক, সাভার (ঢাকা)   

১৬ আগস্ট, ২০১৮ ০০:০০



নিরাপদ সড়কের দাবিতে গত ১ আগস্ট ঢাকা-আরিচা মহাসড়ক অবরোধ, যানবাহনসহ জনসাধারণের চলাচল ব্যাহত করায় সাভার-আশুলিয়ার সাবেক সংসদ সদস্য ডা. দেওয়ান মোহাম্মদ সালাউদ্দিন বাবুসহ পাঁচ শতাধিক ব্যক্তির বিরুদ্ধে মামলা করেছে পুলিশ। সাভার মডেল থানা ও আশুলিয়া থানায় দায়ের করা পৃথক মামলায় তাদের আসামি করা হয়। ১২ আগস্ট রাতে সাভার মডেল থানায় উপপরিদর্শক (এসআই) অখিল রঞ্জন সরকারের দায়ের করা মামলায় ৫৩ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাতপরিচয় ২৫০-৩০০ জনকে আসামি করা হয়। একই দিন গভীর রাতে আশুলিয়া থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মাসুদ রানা ৩৪ জনের নাম উল্লেখ করে এবং অজ্ঞাতপরিচয় আরো ১২০ জনকে আসামি করে আরেকটি মামলা দায়ের করেন। এ মামলায় বিএনপি ও জামায়াত-শিবির নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে ছাত্র আন্দোলনে উসকানি দেওয়ার অভিযোগ আনা হয়েছে।

সাভার মডেল থানায় দায়ের করা মামলার এজাহারে বলা হয়, গত ১ আগস্ট সকাল ৮টা থেকে ৭ আগস্ট বিকেল ৫টা পর্যন্ত মামলার ১ নম্বর আসামি বিএনপির সাবেক সংসদ সদস্য ডা. দেওয়ান মোহাম্মদ সালাউদ্দিন বাবু ও ২ নম্বর আসামি বাবুর ছোট ভাই দেওয়ান বিপ্লবের নেতৃত্বে তিন শতাধিক লোক দাঙ্গা-হাঙ্গামার উদ্দেশ্যে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের সাভার সিটি সেন্টারের সামনে দূরপাল্লার বিভিন্ন যানবাহনের গতি রোধ করে। সকাল সোয়া ১০টায় মামলায় বিএনপি ও জামায়াত সমর্থিত উল্লিখিত আসামিরা আইন-শৃঙ্খলার বিঘ্ন ঘটিয়ে দেশকে অস্থিতিশীল করতে লাঠি ও ইটপাটকেল নিয়ে সমবেত হয়। এ সময় পুলিশ বাধা দেওয়ার চেষ্টা করলে ডা. সালাউদ্দিন বাবু ও বিপ্লবের নির্দেশে অন্যরা পুলিশকে লক্ষ্য করে এলোপাতাড়ি ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে পুলিশের কাজে বাধা দেয় এবং রাস্তায় চলাচলরত যানবাহন ভাঙচুর করে। এরই একপর্যায়ে সাভার মডেল থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) অপূর্ব ও নায়েক জাহাঙ্গীর জখম হয়ে সাভার এনাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা গ্রহণ করেন।

আশুলিয়া থানায় দায়ের করা মামলার ব্যাপারে পুলিশ জানায়, নিরাপদ সড়কের দাবিতে বিভিন্ন স্কুল ও কলেজের শিক্ষার্থীরা আশুলিয়ার বাইপাইল, নবীনগর, জামগড়া, বাইশমাইল ও জিরানী এলাকার মহাসড়ক অবরোধ করে। এভাবে জনগণকে দুর্ভোগে ফেলে নাশকতা, পরিবহনচালকদের মারধর ও পুলিশের কর্তব্য কাজে বাধা দেওয়ার অভিযোগে আন্দোলনরত শিক্ষার্থী এবং এদের পেছনে মদদদাতা ও উসকানিদাতাদের বিরুদ্ধে পুলিশ বাদী হয়ে এ মামলা করে। আসামিদের মধ্যে ৩৪ জনকে এজাহারনামীয় এবং ১২০ জনকে অজ্ঞাতপরিচয় হিসেবে দেখানো হয়েছে।

আশুলিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ আব্দুল আউয়াল মামলার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, পুলিশের কর্তব্য কাজে বাধা ও কোমলমতি শিক্ষার্থীদের উসকানি দিয়ে চলাচলরত পরিবহনচালকদের মারধর ও গাড়ির চাবি ছিনিয়ে নেওয়াসহ বিভিন্ন অভিযোগে মামলাটি দায়ের করা হয়। সিসিটিভির ধারণ করা ছবি সংগ্রহ করে এ মামলা দায়ের করতে কিছুটা বিলম্ব হয়েছে বলেও তিনি জানান।

 



মন্তব্য