kalerkantho


হুমায়ূন আহমেদের মৃত্যুবার্ষিকী পালিত

নিজস্ব প্রতিবেদক, গাজীপুর   

২০ জুলাই, ২০১৮ ০০:০০



জনপ্রিয় কথাসাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদের ষষ্ঠ মৃত্যুবার্ষিকী পালিত হয়েছে গতকাল বৃহস্পতিবার। সমাধিস্থল নুহাশপল্লীতে নেমেছিল তাই ভক্তদের ঢল। কবর জিয়ারত, পুষ্পস্তবক অর্পণ, কোরআনখানি, মিলাদ মাহফিলসহ নানা আয়োজনে দিবসটি স্মরণ করেছেন স্বজন ও ভক্তকুল। জন্মস্থান নেত্রকোনার কেন্দুয়ায় স্বজন ও পরিবারের সদস্যরা অনাড়ম্বরভাবে পালন করেছেন প্রিয়জনের মৃত্যুবার্ষিকী।

গতকাল সকাল থেকে গাজীপুরের নুহাশপল্লীতে ভিড় জমতে থাকে মানুষের। তারা হুমায়ূন আহমেদের সমাধিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানিয়েছে। স্ত্রী মেহের আফরোজ শাওন দুই ছেলে নিষাদ ও নিনিতকে নিয়ে সকালে পৌঁছেন নুহাশপল্লীতে। তিনি সকাল সাড়ে ১১টার দিকে পুত্র ও স্বজনদের নিয়ে কবর জিয়ারত করেন। মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে বেশ কয়েকটি মাদরাসা ও এতিমখানার কয়েক শ শিক্ষার্থী নুহাশপল্লীর বৃষ্টি বিলাস কটেজে কোরআন খতম করে। দুপুরে এতিম শিশুদের মধ্যে খাবার পরিবেশন করা হয়।

হাওরাঞ্চল প্রতিনিধি জানান, হুমায়ূন আহমেদের মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে নেত্রকোনার কেন্দুয়া ও মোহনগঞ্জ উপজেলায় ছিল নানা আয়োজন। নিজ গ্রাম কুতুবপুরে হুমায়ূন আহমেদ প্রতিষ্ঠিত শহীদ স্মৃতি বিদ্যাপীঠের উদ্যোগে দিনভর চলে বিভিন্ন কর্মসূচি। কালো পতাকা উত্তোলন, কালো ব্যাজ ধারণ, কোরআন খতম, প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ, শোকযাত্রা, মিলাদ, দোয়া ও আলোচনাসভা ছিল দিবসটি ঘিরে। আলোচনাসভায় সভাপতিত্ব করেন হুমায়ূন আহমেদের চাচা আলতাবুর রহমান আহমেদ। বক্তব্য দেন প্রধান শিক্ষক আসাদুজ্জামান, সহকারী প্রধান শিক্ষক শরীফ আনিস আহমেদ, ম্যানেজিং কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম প্রমুখ।

কেন্দুয়া জয়হরি স্প্রাই সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে দুপুরে অনুষ্ঠিত হয় চর্চা সাহিত্য আড্ডা ও হুমায়ূন আহমেদ স্মৃতি সংসদের উদ্যোগে দোয়া ও আলোচনাসভা। জন্মস্থান নেত্রকোনার মোহনগঞ্জ পৌর শহরের শেখ বাড়িতেও ছিল নানা আয়োজন। হুমায়ূন আহমেদের আঁতুড়ঘরে থাকা প্রতিকৃতিতে ফুল দেন স্বজন ও পরিবারের সদস্যরা। সেখানে কোরআন খতমের আয়োজন করা হয়। বাদ জোহর শেখ বাড়ি জামে মসজিদে মিলাদ মাহফিল শেষে কাঙালিভোজের আয়োজন করা হয়।



মন্তব্য