kalerkantho


অনিয়মের অভিযোগ

সাভারে ক্লিনিক সিলগালা জরিমানা

নিজস্ব প্রতিবেদক, সাভার (ঢাকা)   

২০ জুলাই, ২০১৮ ০০:০০



সাভারে র‌্যাব-৪, স্বাস্থ্য অধিদপ্তর ও ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তরের সমন্বয়ে গতকাল বৃহস্পতিবার কয়েকটি বেসরকারি হাসপাতালে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান পরিচালিত হয়। এ সময় একটি ক্লিনিককে তিন লাখ টাকা জরিমানা ও অন্য ক্লিনিককে আড়াই লাখ টাকা জরিমানাসহ সিলগালা করে দেওয়া হয়।

অভিযান পরিচালনাকারী ভ্রাম্যমাণ আদালতের (র‌্যাব সদর দপ্তরের) নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সারওয়ার আলম কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘বেশ কয়েকটি হাসপাতাল পরিদর্শন করে আমরা বড় ধরনের অনিয়ম পেয়েছি। প্রথমত, প্যাথলজিকাল ল্যাবে প্রচুর রি-এজেন্ট পেয়েছি, যেগুলোর মেয়াদ দুই-তিন বছর আগে শেষ হয়ে গেছে। দ্বিতীয়ত, যিনি প্যাথলজিস্টের কাজ করেন, তিনি সাইন করেন না। তাঁর পরিবর্তে অন্য একজন সাইন করে। একটি হাসপাতালে রক্ত পরিসঞ্চালনের অনুমোদন নেই। সবচেয়ে ভয়াবহ ব্যাপার হলো, রক্ত পরিসঞ্চালন করতে হলে রক্তের পাঁচটি পরীক্ষা করা আবশ্যক। তা তারা করে না। এভাবে তারা দীর্ঘদিন ধরে রক্ত পরিসঞ্চালন করছে। আর যেসব রোগী পরীক্ষা ছাড়া রক্ত গ্রহণ করেছে, তাদের এইচআইভিসহ নানা ধরনের রোগের ঝুঁকি রয়েছে। পাশাপাশি অপারেশন থিয়েটারে প্রচুর পরিমাণ মেয়দোত্তীর্ণ অ্যান্টিবায়োটিকসহ বেশ কিছু সার্জিক্যাল আইটেম পাওয়া গেছে, যেগুলোর মেয়াদ উত্তীর্ণ হয়ে গেছে সাত-আট বছর আগে।’

এসব অনিয়মের অভিযোগে সাভার থানা বাসস্ট্যান্ডের দীপ ক্লিনিক অ্যান্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টারের মালিক ডা. সিরাজুল ইসলামকে নগদ তিন লাখ টাকা জরিমানা করা হয়। এ ছাড়া ক্লিনিকটিকে প্রয়োজনীয় লোকবল নিয়োগের জন্য ১৫ দিন সময় দেওয়া হয়।

এদিকে ভ্রাম্যমাণ আলাদত বিভিন্ন অভিযোগে পৌর এলাকার তালবাগ মহল্লার সেন্ট্রাল হাসপাতালকে আড়াই লাখ টাকা জরিমানাসহ সিলগালা করে দেন। অভিযানের খবর পেয়ে হাসপাতালটির মালিক ডা. আবু তাহের দৌড়ে পালিয়ে যান। পিছু নিয়েও তাঁকে আটকানো সম্ভব হয়নি। দুই দিন আগে চিকিৎসকের অবহেলায় এই হাসপাতালে এক নারী রোগীর মৃত্যু হয়।



মন্তব্য