kalerkantho


ভুয়া সনদে চাকরি

রাজবাড়ীতে দুই শিক্ষকের বিরুদ্ধে দুদকের মামলা

রাজবাড়ী প্রতিনিধি   

১৯ জুলাই, ২০১৮ ০০:০০



ভুয়া সনদে চাকরি গ্রহণ ও বেতন-ভাতার নামে অর্ধকোটি টাকা আত্মসাৎ করার অভিযোগে রাজবাড়ীতে কলেজ ও মাদরাসার দুই শিক্ষকের বিরুদ্ধে পৃথক দুটি মামলা করেছে দুদক। গতকাল বুধবার সকালে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) ফরিদপুরের সমন্বিত জেলা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক আবু সাঈদ বাদী হয়ে রাজবাড়ী থানায় এ মামলা করেছেন।

মামলার বাদী জানান, রাজবাড়ী জেলা শহরের সজ্জনকান্দা গ্রামের কাজী সদরুল আলম ১৯৯৭ সালের ১৬ নভেম্বর পৌর এলাকার ডা. আবুল হোসেন কলেজের কম্পিউটার প্রভাষক হিসেবে যোগদান করেন। তাঁর এমপিওভুক্তি হয় ২০০০ সালে। আর ওই সময় থেকেই তিনি সরকারি বেতন-ভাতা উত্তোলন করছেন। দুদকের অনুসন্ধানে দেখা যায়, নিয়োগের সময় কাজী সদরুল আলমে সনদ জাল ও ভুয়া। ফলে কাজী সদরুল আলম চাকরিতে যোগদান করে বেতন-ভাতা বাবদ সরকারি অংশের ২৩ লাখ ৪৩ হাজার ২৭৭ টাকা উত্তোলন করেছেন, তা শাস্তিযোগ্য অপরাধ।

অন্যদিকে রাজবাড়ী সদর উপজেলার পাঁচুরিয়া ইউনিয়নের ব্রাহ্মণদিয়া গ্রামের মো. দাউদ আলী ২০০৫ সালের ১৫ মার্চ রাজবাড়ী সদর উপজেলার আলীপুর ইউনিয়নের কল্যাণপুর শহীদ আ. হাকিম ক্যাডেট মহিলা দাখিল মাদরাসায় সহকারী শিক্ষক (কম্পিউটার) হিসেবে যোগদান করেন। তাঁর এমপিওভুক্তি হয় ২০০৫ সালের ১ ডিসেম্বর। আর ওই সময় থেকেই তিনি সরকারি বেতন-ভাতা উত্তোলন করছেন। দুদকের অনুসন্ধানে দেখা যায়, সনদটি জাল ও ভুয়া। ফলে মো. দাউদ আলী চাকরিতে যোগদান করে বেতন-ভাতা বাবদ সরকারি অংশের ১৩ লাখ ২৫ হাজার ৪৭২ টাকা উত্তোলন শাস্তিযোগ্য অপরাধ।



মন্তব্য