kalerkantho


বিসিকের এমডি নিখোঁজ রয়েছেন এক সপ্তাহ ধরে

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৮ জুলাই, ২০১৮ ০০:০০



বিসিকের এমডি নিখোঁজ রয়েছেন এক সপ্তাহ ধরে

শরীফুল ইসলাম

বাংলাদেশ ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প করপোরেশনে (বিসিক) সম্প্রসারণ বিভাগের মহাব্যবস্থাপক মো. শরীফুল ইসলাম ভূঞা নিখোঁজ রয়েছেন সাত দিন ধরে। পরিবারের সদস্যরা বিভিন্ন স্থানে অনুসন্ধানের পর রাজধানীর পল্টন থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছেন। তিনি শারীরিক ও মানসিকভাবে অসুস্থ ছিলেন বলে স্বজনরা জানায়। গত ৯ জুলাই তিনি স্বেচ্ছায় শান্তিনগরের বাসা থেকে বের হয়েছেন লুঙ্গি ও শার্ট পরে।

পারিবারিক সূত্র জানিয়েছে, শরীফুল ইসলাম আরেকবার হারিয়ে গেলে বরিশাল থেকে উদ্ধার করা হয়। গত রোজায় কাউকে কিছু না জানিয়ে তিনি বাসা থেকে বেরিয়ে গিয়েছিলেন। পরদিন বরিশাল বাসস্ট্যান্ডে অসুস্থ অবস্থায় পাওয়া যায়। বিসিকের একজন কর্মকর্তা তাঁকে সেখানে চিকিৎসা দিয়ে ঢাকায় পাঠানোর ব্যবস্থা করেন। পরিবারের লোকজন এ নিয়ে দুশ্চিন্তায় থাকার মাঝেই তিনি দ্বিতীয়বার হারিয়ে গেছেন।

স্ত্রী লায়লা জেসমিন বলেন, ‘আমরা নানা জায়গায় খোঁজ করেও কোনো খোঁজ পাচ্ছি না। তিনি ডায়াবেটিকের রোগী। শারীরিক অন্যান্য সমস্যাও রয়েছে। এক বছর আগে বাবা মারা যাওয়ার পর থেকে মানসিকভাবে দুর্বল হয়ে পড়েছেন। এরপর একমাত্র মেয়ে লেখাপড়ার জন্য দেশের বাইরে চলে গেলে তিনি মনমরা হয়ে থাকতেন।’

স্বজনরা জানায়, বুয়েট থেকে পাস করা শরীফুল ইসলাম বিসিকের সম্প্রসারণ বিভাগের মহাব্যবস্থাপক হিসেবে কর্মরত। তাঁর স্ত্রী লায়লা জেসমিনও বিসিকে চাকরি করেন। বিয়ের পরপরই তাঁরা এমএস করতে যুক্তরাষ্ট্রে গিয়েছিলেন। এ দম্পতির একমাত্র মেয়ে বুয়েট থেকে পাস করে উচ্চশিক্ষায় দেশের বাইরে গেছেন। স্বামী-স্ত্রী একই অফিসে কর্মরত থাকায় শরীফুল ও লায়লা সাধারণত একসঙ্গে অফিসে যেতেন। গত ৯ জুলাই সকালে পেটে সমস্যার কথা বলে বাসায় থেকে যান শরীফুল। ডাক্তার দেখিয়ে পরে অফিসে যাবেন বলেছিলেন স্ত্রীকে। লায়লা অফিসে গিয়ে স্বামীর খোঁজ নিতে ফোন করেন। কিন্তু বারবার রিং বাজলেও কেউ ফোন রিসিভ করেননি। এ অবস্থায় সন্দেহ হলে তিনি বাসায় ফিরে আসেন। ঘরে শরীফুলের মোবাইল ফোন ও মানিব্যাগ থাকলেও তাঁকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিল না। উদ্বিগ্ন হয়ে বাসার সামনে একটি সিসি ক্যামেরার ফুটেজ পরীক্ষা করা হয়। সেখানে দেখা যায় সকাল সাড়ে ১০টার দিকে শরীফুল ইসলাম বাসা থেকে একা বেরিয়ে যাচ্ছেন। তাঁর পরনে লুঙ্গি, গায়ে খয়েরি শার্ট ও পায়ে স্যান্ডেল। এরপর আর তাঁর কোনো খোঁজ না পেয়ে পল্টন থানায় জিডি করা হয়।

ঢাকা মহানগর পুলিশের মতিঝিল বিভাগের উপকমিশনার (ডিসি) আনোয়ার হোসেন জানান, শরীফুল ইসলামের নিখোঁজের ঘটনায় জিডি হয়েছে। তাঁকে উদ্ধারের চেষ্টা চলছে।



মন্তব্য