kalerkantho


অপহরণের আড়াই মাস পর যুবক উদ্ধার গ্রেপ্তার ৬

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৭ জুলাই, ২০১৮ ০০:০০



অপহরণের আড়াই মাস পর গত রবিবার রাতে অপহৃত যুবক শহীদুল ইসলামকে রাজধানীর মহাখালী থেকে উদ্ধার করেছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। এ ঘটনায় পুলিশ অপহরণকারীচক্রের ছয় সদস্যকে গ্রেপ্তার করেছে। তারা হলো লিপি, সুফিয়া বেগম,

আওয়াল মাস্টার, মিন্টু, হাসি ও সোহেল।

পিবিআইয়ের বিশেষ পুলিশ সুপার আবুল কালাম আজাদ জানান, একই গ্রামের হওয়ায় আসামিরা বিভিন্ন সময় সুবজবাগে শহীদুলের বাসায় আসা-যাওয়া করত। একপর্যায়ে সুফিয়া বেগম শহীদুলের স্ত্রী বকুল আক্তার আঁখির কাছে ব্যবসার জন্য পাঁচ লাখ টাকা ঋণ চায়। ঋণ দিতে না চাইলে সুফিয়া ক্ষুব্ধ হয়ে আঁখির ক্ষতি করবে বলে হুমকি দেয়। পরে ২ মে সকালে আঁখির স্বামী শহিদুল ইসলাম সবুজবাগের বাসা থেকে বের হওয়ার পর সুফিয়ার লোকজন তাঁকে অপহরণ করে। পরে শহিদুলের মোবাইল ফোন থেকে তাঁর স্ত্রী আঁখিকে অপহরণকারীরা বলে ‘তুই যদি আমাদের কথামতো পাঁচ লাখ টাকা চাঁদা না দিস কিংবা আমাদের কথামতো খালি স্ট্যাম্পে স্বাক্ষর না করিস, তাহলে তোর স্বামীকে খুন করে টুকরো টুকরো করে বস্তায় ভরে বুড়িগঙ্গা নদীতে ফেলে দেব।’ এ ঘটনায় ভিকটিমের স্ত্রী বাদী হয়ে আদালতে একটি মামলা করেন। ওই মামলার তদন্তের সূত্র ধরে গত রবিবার রাতে মহাখালী থেকে শহীদুলকে উদ্ধার করা হয়।

এদিকে গত রবিবার রাতে তেজগাঁও শিল্পাঞ্চল এলাকা থেকে টেকনাফের ইয়াবা সম্রাট ইয়াসিন আরাফাতকে গ্রেপ্তার করে পিবিআইয়ের একটি দল। এ

সময় তার কাছ থেকে ৪৩ হাজার পিস ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধার করা হয়।

বিশেষ পুলিশ সুপার আবুল কালাম আজাদ জানান, তালিকাভুক্ত মাদক কারবারি ইয়াসিন দীর্ঘদিন ধরে মাদক কারবার করে আসছে। সে মিয়ানমার থেকে নাফ নদ দিয়ে সহযোগীদের দিয়ে ইয়াবার চালান নিয়ে আসে। পরে বিমানসহ সড়ক পথে চালানগুলো দেশের বিভিন্ন স্থানে পাঠিয়ে দেয়। সে ঢাকার শাহজাহানপুর এলাকায় বাস করত। তার সহযোগীদের ধরার চেষ্টা চলছে।

 



মন্তব্য