kalerkantho


বাজেটের ওপর সাধারণ আলোচনা

বিএনপি-জামায়াতকে ক্ষমতার বাইরে রাখতে হবে

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৫ জুন, ২০১৮ ০০:০০



জাতীয় সংসদে প্রস্তাবিত আগামী (২০১৮-১৯) অর্থবছরের বাজেটের ওপর সাধারণ আলোচনায় অংশ নিয়ে সরকারি দলের সংসদ সদস্যরা বলেছেন, সরকারের মেয়াদ শেষে সংবিধান অনুযায়ী যথাসময়ে নির্বাচন হতে হবে। আর সেই নির্বাচনে মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের শক্তির বিজয়ের মাধ্যমে জঙ্গি ও জঙ্গিদের পৃষ্ঠপোষক বিএনপি-জামায়াতকে ক্ষমতার বাইরে রাখতে হবে।

গতকাল রবিবার সংসদ অধিবেশনে প্রস্তাবিত বাজেটের ওপর সাধারণ আলোচনা চলাকালে সভাপতিত্ব করেন প্রথমে স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী এবং পরে ডেপুটি স্পিকার মো. ফজলে রাব্বী মিয়া।

আলোচনায় অংশ নেন জাসদ সভাপতি তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান, খাদ্যমন্ত্রী কামরুল ইসলাম, মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী নারায়ণ চন্দ্র চন্দ, পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহিরয়ার আলম, যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী ড. বীরেন শিকদার, আওয়ামী লীগের সদস্য ধীরেন্দ্র দেবনাথ শম্ভু, সুবিদ আলী ভূঁইয়া, এ কে এম রহমতুল্লাহ, মো. আব্দুল লতিফ, গাজী ম ম আমজাদ হোসেন মিলন, মাহফুজুর রহমান, সিমিন হোসেন রিমি, শফিকুল ইসলাম শিমুল, ডা. হাবিবে মিল্লাত ও মো. মনিরুল ইসলাম, ওয়ার্কার্স পার্টির ইয়াছিন আলী, বাংলাদেশ ন্যাশনালিস্ট ফ্রন্টের (বিএনএফ) এস এম আবুল কালাম আজাদ এবং বিরোধী দল জাতীয় পার্টির সদস্য সালমা ইসলাম, নাসরিন জাহান রত্না ও রওশন আরা মান্নান।

জঙ্গিদের সঙ্গীকে ক্ষমতার বাইরে রাখতে হবে : আলোচনায় অংশ নিয়ে তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলেন, খালেদা জিয়ার কোনো সক্ষমতা ছিল না, স্বপ্নও ছিল না। শুধুই ছিল ব্যর্থতা। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সক্ষমতা, স্বপ্ন ও ভিশন আছে বলেই দেশ আজ উন্নয়নের মহাসড়কে। বিএনপি-জামায়াত হচ্ছে অন্ধকারের, অশান্তির শক্তি। অন্যদিকে শেখ হাসিনা হচ্ছেন উন্নয়ন ও শান্তির দূত। দেশের জনগণকেই ঠিক করতে হবে তারা কোন শক্তির সঙ্গে থাকতে চায়। তিনি বলেন, কারো জন্য অপেক্ষা নয়, যথাসময়ে নির্বাচন হতে হবে। আর নির্বাচনী ফলাফলে জঙ্গিদের সঙ্গীকে ক্ষমতার বাইরে রাখতে হবে।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান বলেন, মানুষ অগ্নি সন্ত্রাস-জঙ্গি সন্ত্রাস পছন্দ করে না। সরকার তা রুখে দিয়েছে। নারীর ক্ষমতায়নে অগ্রগতি, রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দেওয়া, পদ্মা সেতুর মতো প্রকল্প বাস্তবায়নের কথা উল্লেখ করে তিনি উন্নয়নের এই ধারা অব্যাহত রাখতে আগামী নির্বাচনেও আওয়ামী লীগকে বিজয়ী করার আহ্বান জানান।

খাদ্যমন্ত্রী কামরুল ইসলাম, দেশ যখন সব দিক থেকে এগিয়ে যাচ্ছে, তখন একটি মহল নির্বাচন ও নির্বাচন কমিশনকে প্রশ্নবিদ্ধ করার ষড়যন্ত্র করছে। নির্বাচনকে সামনে রেখে ফের অগ্নিসন্ত্রাসের চেষ্টা করা হলে জনগণকে সঙ্গে নিয়ে প্রতিহত করা হবে।

বিএনপির ভারপ্রাপ্ত প্রধানের নাগরিকত্ব নেই : পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহিরয়ার আলম চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়ে বলেন, লন্ডনে পলাতক থাকা দণ্ডিত আসামি বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারপারসন তারেক রহমান তাঁর বাংলাদেশি পাসপোর্ট স্যারেন্ডার করে নাগরিকত্ব বর্জন করেছেন। এর প্রমাণ তুলে ধরে তিনি বলেন, একটি ব্রিটিশ কম্পানির ডিরেক্টর হিসেবে তাঁর নাম উল্লেখ রয়েছে, সেখানে তাঁর নাগরিকত্বের উল্লেখ করা হয়েছে ‘ব্রিটিশ’। যদিও চার মাস পরে তা বদল করে ‘বাংলাদেশি’ উল্লেখ করা হয়েছে। এটি উইকিলিকস ও কয়েকটি তদন্ত সংস্থা প্রকাশ করেছে।

শাহিরয়ার আলম বলেন, বিএনপি এখন এমন একজন মানুষকে দলের প্রধান বানিয়ে রাজনীতি করছে, তাঁর নির্দেশ-উপদেশে দল চলছে, যিনি এ দেশেরই নাগরিকই নন।

ব্যাংক লুট ও পুঁজিবাজার কেলেঙ্কারির কোনো কথা বাজেটে নেই : বিরোধী দলের সদস্য সালমা ইসলাম বলেছেন, প্রস্তাবিত বাজেটে বড় বড় ভিশন-মিশন থাকলেও সবচেয়ে যেটি প্রয়োজন ছিল সেই বিনিয়োগের জন্য তেমন কোনো সুখবর নেই।



মন্তব্য