kalerkantho


শেষ মুহূর্তের প্রচারে সরগরম

নিজস্ব প্রতিবেদক, গাজীপুর   

২৩ জুন, ২০১৮ ০০:০০



শেষ মুহূর্তের প্রচারে সরগরম

গাজীপুরে চলছে নির্বাচনী হাওয়া। মাথার ওপরে ভোটপ্রার্থীদের আশ্বাস সংবলিত পোস্টার থাকলেও পায়ের নিচে কাদাপানি। সাধারণ ভোটারদের প্রশ্ন, কবে সমাধান হবে এসব সমস্যা। ছবিটি গতকালের। ছবি : লুৎফর রহমান

দেশের সবচেয়ে বড় গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনের বাকি আর মাত্র তিন দিন। কিন্তু প্রচারণার সময় আরো কম। আগামীকাল রবিবার রাত ১২টায় শেষ হচ্ছে প্রচার। শেষ মুহূর্তে এসে প্রার্থীদের প্রচারে সরগরম পুরো নগর।

গতকাল শুক্রবার ছুটির দিনে প্রতিদ্বন্দ্বী দুই মেয়র পদপ্রার্থী জাহাঙ্গীর আলম ও হাসান উদ্দিন সরকারের পক্ষে নিজেদের দলের কেন্দ্রীয় নেতা, স্থানীয় নেতাকর্মী ও স্বজনরা মাঠে নামে।

এদিকে বিকেলে প্রচার চালানোর সময় বিএনপির স্থানীয় এক নেতাকে পুলিশের গোয়েন্দা শাখা (ডিবি) ধরে নিয়ে গেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

জাহাঙ্গীর আলমের প্রচার : সকাল ৯টায় নগরীর ছয়দানা এলাকার নিজ বাসভবনে তাবলিগ জামাতের শতাধিক মুরব্বি ও সাথীর সঙ্গে মতবিনিময়ের মাধ্যমে গতকাল প্রচার শুরু করেন আওয়ামী লীগের প্রার্থী জাহাঙ্গীর আলম। এরপর তিনি বাসা থেকে বের হয়ে নগরের কলাবাগানে পথসভায় প্রথম বক্তব্য দেন। পরে একে একে মজলিশপুর, বাংলাবাজার, বিপ্রবর্থা, খালপাড়ায় পথসভা করেন তিনি।

কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ নেতাদের প্রচার : আওয়ামী লীগের একাধিক কেন্দ্রীয় নেতা, দলের সহযোগী ও ভ্রাতৃপ্রতিম সংগঠনের কেন্দ্রীয় নেতারাও প্রচারে নামেন। স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদের (স্বাচিপ) সভাপতি ডা. মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন সকালে টঙ্গীতে এবং দুপুরে চান্দনা চৌরাস্তা এলাকায় প্রচার চালান। দলের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ব্যারিস্টার মুহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল, ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক মো. জাকির হোসেন নগরীর ২৬ নম্বর ওয়ার্ড শাখা আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে নেতাকর্মীদের সঙ্গে নির্বাচনী কৌশল নিয়ে আলোচনা করেন। দলের কেন্দ্রীয় সদস্য এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্রসংসদের (ডাকসু) সাবেক সহসভাপতি (ভিপি) আখতারুজ্জামান পুবাইল ও মীরের বাজার এলাকায় গণসংযোগ করেন।

একই মসজিদে আওয়ামী লীগ-বিএনপি নেতাদের প্রচার : গাজীপুর কেন্দ্রীয় জামে মসজিদে জুমার নামাজ আদায় করেন আওয়ামী লীগ ও বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতারা। তাঁদের মধ্যে ছিলেন ক্ষমতাসীন দলের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ব্যারিস্টার মুহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল, ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. জাকির হোসেন ও বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খোন্দকার মোশারফ হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক মো. ফজলুল হক মিলন। নামাজের আগে নওফেল ও ড. মোশারফ হোসেন মুসল্লিদের সালাম জানান এবং তাদের কাছে দোয়া চান। নামাজ শেষে মসজিদের বাইরে আওয়ামী লীগ ও বিএনপি নেতারা হাতে হাত ধরে মুসল্লিদের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময় করেন এবং একসঙ্গে ছবি তোলেন।

হাসান উদ্দিন সরকারের প্রচার : বিএনপির মেয়র পদপ্রার্থী হাসান উদ্দিন সরকার দিনব্যাপী নগরীর শ্রমিক অধ্যুষিত বাসন অঞ্চলে গণসংযোগ ও পথসভা করেন। তিনি সকাল ৯টায় মোগরখাল এলাকায় পথসভার মাধ্যমে প্রচার শুরু করেন। পরে রৌশন সড়কে পথসভা করেন তিনি। হাসান সরকার জুমার নামাজ আদায় করেন টিঅ্যান্ডটি কলোনি জামে মসজিদে। নামাজ শেষে তিনি মুসল্লিদের সঙ্গে কুশল বিনিময় করেন এবং ভোট ও দোয়া চান।

বিএনপির কেন্দ্রীয় টিমের প্রচার : বিএনপির কেন্দ্রীয় সদস্য ও দলের মেয়র পদপ্রার্থীর মিডিয়া সেলের প্রধান সমন্বয়কারী ড. মাজহারুল আলম জানান, নগরীর ৫৭টি ওয়ার্ডে বিএনপির কেন্দ্রীয় ৫৭টি দল গণসংযোগ করছে। গতকাল দলের ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল নোমান, বরকতউল্লা বুলু, আবুল কালাম আজাদ, সাংগঠনিক সম্পাদক শহিদুল ইসলাম বাবুল, তাঁতীদলের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক কাজী মনিরুজ্জামান মনির, কেন্দ্রীয় নেতা সাবেরা আলাউদ্দিন, ওমর ফারুক শাফিন,  একরামুল হক বিপ্লবসহ দুই শতাধিক কেন্দ্রীয় নেতা প্রচারে অংশ নেন।



মন্তব্য