kalerkantho


জোটের বৈঠকে তারেকের বার্তা জানালেন ফখরুল

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২১ জুন, ২০১৮ ০০:০০



বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ২০ দলীয় জোট নেতাদের কাছে দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের বিশেষ বার্তা পৌঁছে দিয়েছেন। গতকাল বুধবার দুপুরে গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে ২০ দলীয় জোটের বৈঠক হয়। সেখানে রাজনৈতিক নানা ইস্যু নিয়ে আলোচনা হয়েছে।

২০ দলীয় জোটের বৈঠক শেষে কোনো সংবাদ সম্মেলন না হলেও দলীয় সূত্র জানিয়েছে, সম্প্রতি বিএনপি মহাসচিব দেখা করে এসেছেন তারেক রহমানের সঙ্গে। নির্বাচন ও আন্দোলন বিষয়ে বিভিন্ন দিকনির্দেশনা দিতেই জোটের এ বৈঠক আহ্বান করা হয়। সেখানে মির্জা ফখরুল বলেছেন, দেশ ও দেশের মানুষ নিয়ে তারেক রহমান আরো সক্রিয়ভাবে ভাবছেন। দেশের মানুষ ভালো নেই। তারা পরিবর্তন চায়। এই অবস্থায় কিভাবে এই সরকারের হাত থেকে মানুষকে রক্ষা করা যায় তা নিয়ে তিনি ভাবছেন। আগামীতে সরকারবিরোধী যে আন্দোলন হবে জোটের শরিকদের সেখানে সক্রিয় অংশগ্রহণ চেয়েছেন তারেক রহমান।

জানতে চাইলে বাংলাদেশ ন্যাপ মহাসচিব এম এম গোলাম মোস্তফা ভূইয়া বলেন, গাজীপুরসহ চার সিটির নির্বাচনে একত্রে কাজ করবে ২০ দল। আসন্ন বরিশাল, রাজশাহী ও সিলেট সিটি করপোরেশন নির্বাচনে জোটের পক্ষ থেকে একক প্রার্থী মনোনয়ন দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। আগামী ২৭ জুন পরবর্তী বৈঠকে এ বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। এ ছাড়া খালেদা জিয়ার মুক্তির আন্দোলন ধীরে ধীরে বেগবান করার বিষয়ে আলোচনা হয়েছে।

বৈঠকে উপস্থিত আরেক নেতা জানান, খালেদা জিয়ার সুচিকিৎসায় ইউনাইটেড হাসপাতালে পাঠানোর জোর দাবি জানান জোট নেতৃবৃন্দ। জাতীয় পার্টি (জাফর) প্রেসিডিয়াম সদস্য খালেকুজ্জামান চৌধুরীর ইন্তেকালে গভীর শোক প্রকাশ করা হয়। বৈঠকে পবিত্র রমজানে ও ঈদের ছুটিতে বিরোধী দলের নেতাকর্মীদের গ্রেপ্তারের নিন্দা ও নিঃশর্ত মুক্তির দাবি জানানো হয়। বিচারবহির্ভূত হত্যার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানানো হয়।

মির্জা ফখরুলের সভাপতিত্বে ২০ দলীয় জোটের এ বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন জামায়াতের কেন্দ্রীয় নির্বাহী সদস্য আব্দুল হালিম, জাতীয় পার্টি (জাফর) মহাসচিব মোস্তফা জামাল হায়দার, বিজেপি চেয়ারম্যান আন্দালিব রহমান পার্থ, এনডিপি চেয়ারম্যান খন্দকার গোলাম মোর্ত্তজা, এনপিপি চেয়ারম্যান ড. ফরিদুজ্জামান ফরহাদ, খেলাফত মজলিশের মহাসচিব ড. আহমেদ আব্দুল কাদের, জাগপা সভাপতি রেহেনা প্রধান, কল্যাণ পার্টির মহাসচিব এম এম আমিনুর রহমান, বিএমএল সভাপতি এ এইচ এম কামরুজ্জামান খান, লেবার পার্টি (একাংশ) চেয়ারম্যান মোস্তাফিজুর রহমান ইরান, (অপরাংশ) মহাসচিব হামদুল্লাহ আল মেহেদি, ডিএল সাইফুদ্দিন মনি, পিপলস লীগ মহাসচিব সৈয়দ মাহবুব হোসেন, জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব মুফতি মহিউদ্দিন ইকরাম, ইসলামিক পার্টির চেয়ারম্যান আবু তাহের চৌধুরী, ইসলামিক ঐক্যজোট চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট এম এ রাকিব প্রমুখ।



মন্তব্য