kalerkantho


সংসদে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী

স্বাধীনতাবিরোধীদের ঘৃণা জানাতে নির্মিত হচ্ছে ঘৃণাস্তম্ভ

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২০ জুন, ২০১৮ ০০:০০



স্বাধীনতাবিরোধীদের প্রতি ঘৃণা প্রকাশের জন্য রাজধানী ঢাকায় একটি ঘৃণাস্তম্ভ নির্মাণের পরিকল্পনা নিয়েছে সরকার। স্থাপত্য অধিদপ্তরের মাধ্যমে এরই মধ্যে এ স্থাপত্য নকশার খসড়াও প্রস্তুত করা হয়েছে।

মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক গতকাল মঙ্গলবার জাতীয় সংসদ অধিবেশনে প্রশ্নোত্তর পর্বে এ তথ্য জানান। স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে শুরু হওয়া অধিবেশনে এসংক্রান্ত লিখিত প্রশ্ন উত্থাপন করেন সংরক্ষিত আসনের সদস্য বেগম উম্মে রাজিয়া কাজল। জবাবে মন্ত্রী আরো জানান, ঘৃণাস্তম্ভের স্থাপত্য নকশা দ্রুতই চূড়ান্ত করে প্রকল্প প্রস্তাব (ডিপিপি) অনুমোদনের জন্য পরিকল্পনা কমিশনে পাঠানো হবে। তবে রাজাকারদের সম্পদ বাজেয়াপ্ত করে বেসরকারিভাবে জনগণের কাজে লাগানোর কোনো পরিকল্পনা সরকারের নেই।

সরকারি দলের সদস্য নিজাম উদ্দিন হাজারীর প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী জানান, যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধারা রেলওয়েতে প্রথম শ্রেণিতে বিনা ভাড়ায় যাত্রায়াতের সুবিধা পান। বিমানের অভ্যন্তরীণ প্রতিটি রুটে (যাতায়াত) বছরে একবার এবং আন্তর্জাতিক যেকোনো রুটে যাওয়ার সুযোগ পেয়ে থাকেন। এ ছাড়া বিনা ভাড়ায় বিআরটিসি বাসে, বিআইডাব্লিউটিএর জলযানে প্রথম শ্রেণিতে বিনা ভাড়ায় যাতায়াত করতে পারেন। তাঁরা পর্যটন করপোরেশনের মোটেল ও হোটেলে সপরিবারে সর্বোচ্চ দুই রাত বিনা ভাড়ায় বছরে একবার থাকার সুবিধা পেয়ে থাকেন।

বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটনমন্ত্রী এ কে এম শাহজাহান কামাল সংসদে জানান, আন্তর্জাতিক বেসামরিক বিমান চলাচল সংস্থা (আইসিএও) পরিচালিত বিভিন্ন সময়ের অডিটে বাংলাদেশ উল্লেখযোগ্য সাফল্য অর্জন করেছে।

সাবেক বিমানমন্ত্রী মুহাম্মদ ফারুক খানের প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী আরো জানান, এই অর্জনের ফলে বাংলাদেশ ফ্লাইট সেফটি ওভারসাইট বিষয়ে পৃথিবীর প্রথমসারির দেশগুলোর মধ্যে স্থান করে নিয়েছে।

এই সাফল্যের স্বীকৃতিস্বরূপ আইসিএও কাউন্সিল প্রেসিডেন্ট সার্টিফিকেট অ্যাওয়ার্ড ঘোষণা করেছে, যা বাংলাদেশের এভিয়েশন সেক্টরের ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ সম্মাননা।



মন্তব্য