kalerkantho


খাদ্য নিরাপত্তা

কৃষি উন্নয়ন করপোরেশন বিল সংসদে উত্থাপন

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২০ জুন, ২০১৮ ০০:০০



দেশে ক্রমবর্ধমান জনসংখ্যার বিপরীতে খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে জাতীয় সংসদে ‘বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন করপোরেশন (বিএডিসি) আইন-২০১৮’ নামের একটি বিল উত্থাপন করা হয়েছে। কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী বিলটি উত্থাপনের পর অধিকতর পরীক্ষা-নিরীক্ষার জন্য সংসদীয় স্থায়ী কমিটিতে পাঠানো হয়েছে। এ ছাড়া ‘বরেন্দ্র বহুমুখী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ আইন-২০১৮’ নামের আরেকটি বিলও সংসদে উত্থাপন করেন মন্ত্রী।

গতকাল মঙ্গলবার বিকেলে স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে শুরু হওয়া অধিবেশনে বিল দুটি উত্থাপনের বিরোধিতা করেন বিরোধী দল জাতীয় পার্টির সংসদ সদস্য মো. ফখরুল ইমাম। তবে তাঁর আপত্তি কণ্ঠভোটে নাকচ হয়ে যায়। পরে বিল দুটি পরীক্ষা-নিরীক্ষার জন্য কৃষি মন্ত্রণালয়সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটিতে পাঠানো হয়।

বিএডিসি বিলের উদ্দেশ্য কারণসংবলিত বিবৃতিতে বলা হয়, ২০০০ সালের ৩ জুলাই মন্ত্রিসভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ১৯৬১ সালে ইংরেজি ভাষায় প্রণীত ‘দ্য বাংলাদেশ অ্যাগ্রিকালচারাল ডেভেলপমেন্ট করপোরেশন অর্ডিন্যান্স’ আইনটি বাংলায় রূপান্তর হওয়া আবশ্যক। সেই বিবেচনায় আইনটি পরিমার্জন, যুগোপযোগী ও হালনাগাদ করে ‘বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন করপোরেশন আইন-২০১৮’ প্রণয়ন করা হয়েছে। ক্রমবর্ধমান জনসংখ্যার খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করার জন্য কৃষি উৎপাদন বৃদ্ধির লক্ষ্যে সার, সেচ, বীজ ও উদ্যান উন্নয়নসংক্রান্ত কৃষি উপকরণ ও যন্ত্রপাতি প্রভৃতির উৎপাদন, সংগ্রহ, মেরামত, প্রক্রিয়াজাতকরণ, পরিবহন, গুদামজাতকরণ এবং কৃষক পর্যায়ে সরবরাহের কার্যক্রম অব্যাহত রাখা প্রয়োজন।

প্রস্তাবিত আইনে কেউ বিএডিসির নোটিশ অমান্য করলে ১০ হাজার টাকা পর্যন্ত জরিমানা করা যাবে। যদি কেউ এ অপরাধ দ্বিতীয়বার করে তবে প্রতিদিনের জন্য ৫০ টাকা হারে জরিমানা দিতে হবে। আগে নোটিশ দেওয়ার বিষয়টি থাকলেও তা অমান্য করলে কোনো দণ্ড ছিল না।



মন্তব্য