kalerkantho


ফাঁকা ঢাকায় বাধাহীন দুরন্ত গতি

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৯ জুন, ২০১৮ ০০:০০



ফাঁকা ঢাকায় বাধাহীন দুরন্ত গতি

ঈদের ছুটি শেষ হলেও গতকাল রাজধানী ছিল অনেকটাই ‘জন-যান’ শূন্য। ছবিটি রাজধানীর সবচেয়ে ব্যস্ততম এলাকা ফার্মগেট থেকে তোলা। ছবি : কালের কণ্ঠ

যতদূর চোখ যায় ফাঁকা সড়ক। মাঝেমধ্যে চলছে বাস, অটো কিংবা অন্য কোনো যানবাহন। রাজপথের বেশির ভাগ পয়েন্টে নেই ট্রাফিক পুলিশ। ঢাকার এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে অনায়াসে ছুটে চলছে মানুষজন। তবে বড় বেশি জটলা বিভিন্ন বিনোদন কেন্দ্রের সামনে।

গতকাল সোমবার বিকেলে মিরপুরে বিহঙ্গ পরিবহনের যাত্রী নিজামুল হক বললেন, ‘সদরঘাট থেকে মিরপুর ১০ নম্বরে এলাম মাত্র ১৮ মিনিটে। ঢাকায় এমনটা কখনো ভাবা যায়? দুই ঘণ্টার রাস্তা পাড়ি দিতে সময় লেগেছে মাত্র ১৮ মিনিট, কারণ রাস্তায় গাড়ির সংখ্যা বেশ কম।’ রাজধানী ঢাকা এখন গতিশীল। নেই যানজটের তীব্রতা। ১৫ মিনিটেই মিরপুর থেকে গুলিস্তান চলাচল করা সম্ভব হচ্ছে গণপরিবহনে। স্বাভাবিক সময়ে ঢাকা অচল থাকে যানজটে।

ঈদের ছুটির পর গতকাল ছিল প্রথম কর্মদিবস। তবে নির্ধারিত তিন দিনের সঙ্গে বাড়তি ছুটি যোগ করে নগরবাসীর বড় একটা অংশই এখনো ঢাকার বাইরে অবস্থান করছে। এ কারণে এদিন অফিস-আদালতসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে কর্মকর্তা-কর্মচারীর উপস্থিতি ছিল কম।

তবে শিকড়ে ফিরে স্বজনের সঙ্গে ঈদ উদ্‌যাপন শেষে মানুষ ফিরতে শুরু করেছে ইট-পাথরের নগরীতে। গতকালও রেলপথ, সড়কপথ ও নৌপথে যাত্রীরা ঢাকায় ফেরেন। তবে কোথাও অতিরিক্ত যাত্রীর চাপ ছিল না। কমলাপুর রেলস্টেশনে গতকাল ৫৯টি ট্রেন আসে বিভিন্ন জেলা থেকে। দুপুরে রাজশাহী থেকে আসা ট্রেনযাত্রী মরিয়ম বেগম বললেন, ‘যাবার সময় টিকিট ছাড়াই গেছি। তবে আসলাম বসে বসেই। ট্রেনে আগের মতো ভিড় নেই।’

মহাখালী, গাবতলী ও সায়েদাবাদ বাস টার্মিনালে যাত্রীর ভিড় বাড়ছে। আজ বাড়ি থেকে ঢাকায় ফেরা লোকজনের ভিড় বাড়বে বলে মন্তব্য করেন বাংলাদেশ বাস-ট্রাক ওনার্স অ্যাসোসিয়েশনের কর্মকর্তারা।

তবে এবার ঈদযাত্রা ও ফেরা অন্যান্য বারের চেয়ে স্বস্তিদায়ক হয়েছে অনেক রুটে। তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনুর মুখে তাই গতকাল সড়কমন্ত্রীর প্রশংসা শোনা গেছে। ঈদুল ফিতরের পর প্রথম কর্মদিবসে গতকাল সচিবালয়ে নিজ দপ্তরে উপস্থিত হয়ে তথ্য মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা-কর্মচারী ও সাংবাদিকদের সঙ্গে ঈদ শুভেচ্ছা বিনিময় করেন তথ্যমন্ত্রী। সকালে তথ্যসচিব আবদুল মালেকের নেতৃত্বে প্রধান তথ্য কর্মকর্তা কামরুন নাহার, অতিরিক্ত সচিবদের মধ্যে আবুয়াল হোসেন, মোশাররফ হোসেন, পরিতোষ চন্দ্র দাস, আজহারুল হকসহ অন্যান্য কর্মকর্তা-কর্মচারী এই শুভেচ্ছা বিনিময়ে যোগ দেন। প্রিন্ট, ইলেকট্রনিক ও অনলাইন গণমাধ্যমের সাংবাদিকরা এ সময় শুভেচ্ছা বিনিময়ের পাশাপাশি সাম্প্রতিক বিষয় নিয়ে তথ্যমন্ত্রীর সঙ্গে মতবিনিময় করেন।

ইনু বলেন, ‘ঈদে মানুষ নির্বিঘ্নে বাড়ি যেতে পেরেছে। কোথাও যানজটের তেমন খবর আমরা শুনিনি। এটা সরকারের অনেক বড় সফলতা।’ সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরকে ধন্যবাদ জানিয়ে তিনি বলেন, ‘যোগাযোগের ক্ষেত্রে তাঁর প্রচেষ্টা আন্তরিক ও ঐকান্তিক।’ এবার ঈদে রেল যোগাযোগ ব্যবস্থা অনেক ভালো ছিল উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘রেলের ব্যাপক উন্নতি হয়েছে। আমি এ জন্য রেলমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানাই। উনি মানুষের দুর্ভোগ বোঝেন, নিজে তত্ত্বাবধান করে এই যোগাযোগ ব্যবস্থার ব্যাপক উন্নতি করেছেন তিনি।’



মন্তব্য