kalerkantho


ঈদ যাত্রার পরিস্থিতি পরিদর্শন আইজিপির

অজ্ঞান ও মলম পার্টির বিরুদ্ধে পুলিশ তৎপর

নিজস্ব প্রতিবেদক, গাজীপুর, সাভার ও কালিয়াকৈর প্রতিনিধি   

১৪ জুন, ২০১৮ ০০:০০



বাংলাদেশ পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী বলেছেন, ‘ঈদ যাত্রায় অজ্ঞান ও মলম পার্টির বিরুদ্ধে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী তৎপর রয়েছে। যাত্রা নিরাপদ করতে রাত্রিকালীন পর্যাপ্ত নিরাপত্তা দেওয়ার পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। রাস্তায় প্রচুর পোশাক ও সিভিলে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে।’

গতকাল বুধবার দুপুরে গাজীপুর মহানগরীর চান্দনা চৌরাস্তা এলাকায় মহাসড়কে যানজট পরিস্থিতি এবং মহাসড়কে বেশ কয়েকটি পুলিশ কন্ট্রোল রুম পরিদর্শনকালে তিনি সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন। পরে তিনি ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের কোনাবাড়ী এবং কালিয়াকৈরের চন্দ্রা এলাকায় যানজট পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ ও পুলিশের কার্যক্রম পরিদর্শন করেন। এ সময় তিনি বলেন, ফিটনেসবিহীন যানবাহনের কারণে মহাসড়কে যানজটের সৃষ্টি হতে পারে। ফিটনেসবিহীন যানবাহনের কারণে যাতে যানজটের সৃষ্টি হতে না পারে তার জন্য পরিবহন বিভাগের সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের সঙ্গে কথা বলে এসব গাড়ি নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করা হয়েছে।

এদিকে গতকাল দুপুরে সাভারে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের আমিনবাজার থেকে নবীনগর জাতীয় স্মৃতিসৌধ পর্যন্ত ২২ কিলোমিটার এলাকায় স্থাপিত সিসিটিভি প্রকল্প ও সেন্ট্রাল মনিটরিং অ্যান্ড কমান্ড সেন্টারের উদ্বোধন করা হয়েছে।

এ সময় আইজিপি জাবেদ পাটোয়ারী বলেন, ‘আমরা জনগণের জন্য কাজ করি এবং আমরা সব সময় মনে করি, আপনাদের নিরাপদ রাখা আমাদের প্রধান এবং একমাত্র দায়িত্ব। আপনারা যদি নিরাপদ বোধ করেন, আপনারা যদি শান্তিতে থাকেন তাহলে দেশ নিরাপদে ও শান্তিতে থাকবে।’

আইজিপি বলেন, এই সিসিটিভি ব্যবস্থা এই ঈদে যানজট নিয়ন্ত্রণে অনেক কাজে আসবে। যারা সব সময় আইন মান্য করে, তাদের জন্য এটা নিয়ে ভয়ের কোনো কারণ নেই। এটা তাদের জন্যই ভীতিকর যারা আইন অমান্য করে। যারা আইন অমান্য করে তাদের আইনের আওতায় নিয়ে আসার জন্যই এই প্রচেষ্টা।

জানা যায়, এ প্রকল্পের মাধ্যমে আমিনবাজার থেকে নবীনগর জাতীয় স্মৃতিসৌধ পর্যন্ত মহাসড়কের উভয় পাশে অবস্থিত ফিলিং স্টেশনগুলোর সার্বিক নিরাপত্তা বিধান করা সম্ভব হবে। মহাসড়ককেন্দ্রিক বিভিন্ন ধরনের রাজনৈতিক সহিংসতা, যেমন গাছ কেটে রাস্তা অবরোধ, জ্বালাও-পোড়াও ও গাড়ি ভাঙচুরের সঙ্গে জড়িতদের শনাক্তসহ গ্রেপ্তার করে আইনের আওতায় আনা সম্ভব হবে। 



মন্তব্য