kalerkantho


ফখরুল বললেন

৯ বছরেও আ. লীগ তিস্তা চুক্তি করতে পারেনি

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৬ মে, ২০১৮ ০০:০০



বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী ভারতের পশ্চিমবঙ্গে গেছেন; রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের শান্তিনিকেতনে বাংলাদেশ ভবন নির্মাণ হয়েছে—অত্যন্ত ভালো কথা। সেই সঙ্গে আমাদের প্রশ্ন, জনগণের প্রশ্ন—আমাদের যে পাওনাগুলো রয়েছে, সমস্যাগুলো রয়েছে সেগুলো সম্পর্কে তিনি (প্রধানমন্ত্রী) কথা বলছেন কি না। আওয়ামী লীগ সরকার গঠন করার সময় বলেছিল, তিস্তা চুক্তি শুধু সময়ের ব্যাপার। এরপর ৯ বছর পার হলেও তিস্তা নদীর এক ফোঁটা পানির ব্যাপারেও কোনো চুক্তি হয়নি।

গতকাল শুক্রবার বিকেলে এক ইফতার অনুষ্ঠানের আগে সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে বিএনপি মহাসচিব এ মন্তব্য করেন। রাজধানীর গুলশানে ইমান্যুয়েলস কনভেনশন সেন্টারে রাজনীতিবিদদের সম্মানে ২০ দলীয় জোটের অন্যতম শরিক জাতীয় পার্টি (কাজী জাফর) এই ইফতার মাহফিলের আয়োজন করে।

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘শুধু তিস্তা নয়, অভিন্ন যে ১৫৮টি নদী রয়েছে সেগুলোর হিস্যার ব্যাপারেও কোনো চুক্তি হয়নি। অথচ সামরিক চুক্তি হচ্ছে। সীমান্তে মানুষদের হত্যা করা হয়—সেটা বাদ দিয়ে ট্রানজিট হয়ে যাচ্ছে। বিভিন্ন বন্দর নির্মিত হচ্ছে। আমরা অবশ্যই কানেকটিভিটির পক্ষে। একই সঙ্গে বিনিময়ে আমরা কী পাচ্ছি সেটাও জনগণের সামনে তুলে ধরতে হবে। জনগণকে বোকা বানিয়ে, জনগণের সঙ্গে প্রতারণা করে আপনারা ক্ষমতায় টিকে থাকতে চাচ্ছেন।’

মাদকবিরোধী অভিযানের প্রতি ইঙ্গিত করে তিনি বলেন, গত কয়েক বছর ধরে সরকার বিভিন্ন অভিযানের নামে এ দেশের নিরীহ মানুষকে হত্যা করছে। তিনি আরো বলেন, খালেদা জিয়া গণতন্ত্রের প্রতীক। তাঁকে বাদ দিয়ে কখনো কোনো অবাধ সুষ্ঠু নির্বাচন হতে পারে না।

জাতীয় পার্টির (কাজী জাফর) ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান ড. টি আই এম ফজলে রাব্বী চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন মহাসচিব মোস্তফা জামাল হায়দার। ২০ দলীয় জোটের শরিক জামায়াতে ইসলামীর মিয়া গোলাম পারোয়ার, আবদুল হালিম, এলডিপির রেদোয়ান আহমেদ, ইসলামী ঐক্যজোটের মাওলানা এম এ রকীব, বিজেপির আবদুল মতিন সাউদ, খেলাফত মজলিশের মাওলানা শেখ গোলাম আজগর, জাগপার খন্দকার লুত্ফর রহমান, এনপিপির ফরিদুজ্জামান ফরহাদ, কল্যাণ পার্টির এম এম আমিনুর রহমান, ন্যাপের মোস্তফা ভুঁইয়া প্রমুখ এ সময় উপস্থিত ছিলেন। এ ছাড়া ইফতারে বিএনপির বরকতউল্লা বুলু, শামসুজ্জামান দুদু, নিতাই রায় চৌধুরী, মেহেদি আহমেদ রুমি, জাতীয় পার্টির এস এম এম আলম, আহসান হাবিব লিংকন প্রমুখ অংশ নেন।


মন্তব্য