kalerkantho


গাজীপুর সিটি নির্বাচন

জাহাঙ্গীরের প্রচারণায় মন্ত্রী-এমপি হাসান সরকারের ঘরোয়া বৈঠক

নিজস্ব প্রতিবেদক, গাজীপুর   

২৫ মে, ২০১৮ ০০:০০



গাজীপুর সিটি নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনীত মেয়র পদপ্রার্থী জাহাঙ্গীর আলমের পক্ষে প্রচার-প্রচারণায় মাঠে নেমেছেন মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক ও স্থানীয় সংসদ সদস্য জাহিদ আহসান রাসেল। গতকাল বৃহস্পতিবার মহানগরীর বিভিন্ন ওয়ার্ডে ইফতার ও দোয়া মাহফিলে তাঁরা নৌকার পক্ষে ভোট প্রার্থনা করেন।

নগরীর ১৮ নম্বর ওয়ার্ডের সাগর সৈকত কনভেনশন সেন্টারে গতকাল বিকেলে অনুষ্ঠিত আলোচনাসভা ও ইফতার মাহফিলে প্রধান অতিথি ছিলেন মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক। তিনি বলেন, ‘তরুণ বয়সেই ইবাদত ও সেবা করার উত্তম সময়। একজন যোগ্য ও কর্মঠ নগরসেবক হিসেবে জাহাঙ্গীরকে আপনারা সব সময় কাছে পাবেন। তাই জাহাঙ্গীরকে আপনাদের সেবক হিসেবে নির্বাচিত করার আহ্বান জানাচ্ছি। তিনি ইতিমধ্যেই জাহাঙ্গীর আলম শিক্ষা ফাউন্ডেশনের মাধ্যমে সেবামূলক কাজ করে গাজীপুরের সর্বস্তরের মানুষের মন জয় করেছেন। মানুষের ভালোবাসাই জাহাঙ্গীরকে জয়যুক্ত করবে।’

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন গাজীপুর সোসাইটির সভাপতি ও আওয়ামী লীগ নেতা অ্যাডভোকেট শফিকুল ইসলাম বাবুল। বক্তব্য দেন মেয়র পদপ্রার্থী মো. জাহাঙ্গীর আলম, মহানগর আওয়ামী লীগের সহসভাপতি অ্যাডভোকেট আমজাদ হোসেন বাবুল, গাজীপুর মহানগর জাতীয় পার্টির সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা আব্দুস সাত্তার মিয়া, জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি অ্যাডভোকেট আমানত হোসেন খান, মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক এস এম মোকছেদ আলম, আওয়ামী লীগ নেতা সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী, প্রফেসর আব্দুল বারী, মহানগর যুবলীগের আহ্বায়ক কামরুল আহসান সরকার রাসেল, সাবেক ভিপি আব্দুল হালিম সরকার, কাউন্সিলর সফর আলী প্রমুখ।

এ ছাড়া জাহাঙ্গীর আলম গতকাল মহানগরীর ১৮, ২৬ ও ২৭ নম্বর ওয়ার্ডে মহানগর আওয়ামী লীগ আয়োজিত পৃথক তিনটি ইফতারপূর্ব আলোচনায় উপস্থিত মুসল্লিদের কাছে দোয়া ও সমর্থন প্রার্থনা করেন।  ২৬ ও ২৭ নম্বর ওয়ার্ডের উনিশে পার্ক সেন্টার ও লক্ষ্মীপুরা কমিশনার কার্যালয়ের পাশে পৃথক দুটি দোয়া এবং ইফতার মাহফিল আয়োজন করা হয়। সেখানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন গাজীপুর-২ আসনের সংসদ সদস্য মো. জাহিদ আহসান রাসেল। তিনি বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে গাজীপুর ও টঙ্গীর প্রতিটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে অবকাঠামো উন্নয়ন হয়েছে। ঢাকা-গাজীপুর বিআরটিএ প্রকল্প বাস্তবায়ন হচ্ছে। এখন প্রয়োজন পরিকল্পিত নগরায়ণ। আওয়ামী লীগের মেয়র পদপ্রার্থী জাহাঙ্গীর আলমই পারবেন কেন্দ্রীয় সরকারের সহযোগিতায় একটি পরিকল্পিত আধুনিক নগর গড়ে তুলতে।’ এ সময় অন্যান্যের মধ্যে মহানগর আওয়ামী লীগের সহসভাপতি মো. আব্দুর রউফ নয়ন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মো. আতাউল্লাহ মণ্ডল, সাংগঠনিক সম্পাদক মো. মুজিবুর রহমান, কাজী ইলিয়াস আহমেদ, সদস্য আব্দুল হাদী শামীম, উপদেষ্টা মো. রিয়াজ মাহমুদ আয়নাল, মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগ সভাপতি রঞ্জিত কুমার মল্লিক বাবু প্রমুখ নেতা উপস্থিত ছিলেন।

অন্যদিকে বিএনপির মেয়র পদপ্রার্থী হাসান উদ্দিন সরকার গতকাল নিজ বাসভবনে দলীয় নেতাকর্মীদের সঙ্গে নির্বাচনী কৌশল নিয়ে আলোচনা করেন। তিনি বলেন, “স্বার্থান্বেষী মহল জনমতকে প্রভাবিত করতে পরিকল্পিতভাবে তথ্য-প্রযুক্তি ব্যবহার করে অপপ্রচারের মিশন নিয়ে নেমেছে। আওয়ামী লীগ নির্বাচনী বৈতরণি পার হওয়ার জন্য অপপ্রচার সেল চালু করেছে। ওই সেল থেকে বিভিন্ন ভুয়া আইডি ব্যবহার করে ‘হাসান সরকার ভণ্ড দেওয়ানবাগীর মুরিদ’, ‘জাহাঙ্গীরকে হারাতে মহাসচিবের কাছে ১০ কোটি টাকা চেয়েছেন হাসান সরকার’, ‘হাসান সরকার নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়াচ্ছেন’, ‘হাসানকে হারাতে মান্নান-সানাউল্লাহ ঐকমত্য’ ইত্যাদি নানা গুজব ও অপপ্রচার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেওয়া হচ্ছে। প্রপাগান্ডা ছড়িয়ে ধানের শীষের জোয়ার রোধ করা যাবে না। ব্যালটের মাধ্যমে নগরবাসী এসব অপপ্রচারের জবাব দেবে।”

তিনি বলেন, ‘নির্বাচন কমিশনে একের পর এক অভিযোগ করেও কোনো কাজ হচ্ছে না। আওয়ামী লীগ নির্বাচনী আচরণবিধিকে কোনো তোয়াক্কাই করছে না। সরকারি সুযোগ-সুবিধা নিয়ে মন্ত্রী-এমপিরা প্রকাশ্যে নির্বাচনী প্রচারণায় মাঠে রয়েছেন।’

বিকেলে হাসান উদ্দিন সরকার টঙ্গীর মুদাফায় প্রথম সংসদের সদস্য মরহুম আব্দুল হাকিম মাস্টারের সহধর্মিণী নূরের নেছার জানাজায় অংশ নেন। পরে টঙ্গীর বড় দেওড়ায় আহসানউল্লাহ সরকার ইসলামিক ফাউন্ডেশন কমপ্লেক্সে এতিম ছাত্রদের সঙ্গে ইফতার করেন।


মন্তব্য