kalerkantho


এটিএম বুথের নিরাপত্তাকর্মী খুন

বাগেরহাটে মার খাওয়ার প্রতিশোধ নিতে হত্যা

আদালত প্রতিবেদক   

২৫ মে, ২০১৮ ০০:০০



রাজধানীর ক্যান্টনমেন্ট থানা এলাকায় বেসরকারি ইস্টার্ন ব্যাংক লিমিটেডের (ইবিএল) এটিএম বুথে নিরাপত্তাকর্মীকে হত্যার ঘটনায় গ্রেপ্তার রাসেল শেখ ওরফে নয়ন (১৯) আদালতে দায় স্বীকার করে জবানবন্দি দিয়েছে। হত্যাকাণ্ডের বিবরণ দিয়ে তিনি বলেছেন, বাগেরহাটে মার খাওয়ার প্রতিশোধ নিতেই ঢাকায় এসে নিরাপত্তাকর্মী শেখ তৌহিদুল ইসলাম নুরন্নবীকে ছুরিকাঘাতে খুন করেছে সে।

গতকাল বৃহস্পতিবার ঢাকার মহানগর হাকিম সত্যব্রত সিকদারের কাছে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দেয় রাসেল। জবানবন্দি নেওয়ার পর বিচারক তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

আদালত সূত্রে জানা গেছে, জবানবন্দিতে রাসেল বলেছেন, গত বছরের জুলাইয়ে বাগেরহাটে একটি নৌকাবাইচ দেখতে গিয়ে গায়ে সাইকেল লাগাকে কেন্দ্র করে তৌহিদুলের সঙ্গে রাসেলের কথা-কাটাকাটি হয়। সেখান থেকে ফেরার পথে রাসেলকে মারধর করেন তৌহিদুল। চলতি বছর ঢাকায় এসে রাসেল আইকন ফর সিকিউরিটি সার্ভিসে রিক্রুটিং এজেন্ট হিসেবে কাজ নেয়। গত ২০ মে সে ঢাকার বিভিন্ন এলাকায় লোক নিয়োগের পোস্টার লাগানোর সময় ক্যান্টনমেন্ট থানা এলাকার ইবিএল বুথে তৌহিদুলকে দেখতে পায়। সেখানে আবার তাদের মধ্যে হাতাহাতি হয়। পরদিন গত সোমবার ভোর প্রায় ৪টার দিকে আবার ওই বুথে আসে এবং ছুরিকাঘাত করে তৌহিদুলকে জখম করে। পরে তাঁর গলা কেটে মৃত্যু নিশ্চিত করে খুলনা চলে যায় সে। যাওয়ার সময় পাশের নালায় ছুরিটি ফেলে দিয়ে যায় বলে রাসেল জবানবন্দিতে জানায়।

গত সোমবার সকালে পুলিশ তৌহিদুলের লাশ উদ্ধার করার পর তাঁর বাবা শেখ আবু বক্কর সিদ্দিক অজ্ঞাতপরিচয় আসামিদের বিরুদ্ধে ক্যান্টনমেন্ট থানায় হত্যা মামলা করেন।

এটিএম বুথের ক্লোজ সার্কিট (সিসি) টিভি ক্যামেরায় ধারণ করা ভিড়িও ফুটেজ দেখে রাসেলকে শনাক্ত করার পর মঙ্গলবার দিবাগত রাতে খুলনার সোনাডাঙ্গা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। গতকাল মামলার তদন্ত কর্মকর্তা উপপরিদর্শক আসাদুজ্জামান তাকে আদালতে সোপর্দ করেন।


মন্তব্য