kalerkantho


পচা-বাসি খাবার, তেলাপোকা

বাবুর্চি ও কড়াই গোস্তকে ৩ লাখ টাকা জরিমানা

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৪ মে, ২০১৮ ০০:০০



খাবারে তেলাপোকা, পচা-বাসি খাবার বিক্রি এবং অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে খাদ্যপণ্য তৈরির অপরাধে রাজধানীর ধানমণ্ডির সাতমসজিদ রোডে কড়াই গোস্ত ও বাবুর্চি রেস্টুরেন্টকে তিন লাখ টাকা জরিমানা করেছে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের দল। গতকাল বুধবার এ বিশেষ অভিযান চালানো হয়। একই সড়কে অবস্থিত কেএফসি রেস্টুরেন্টকে রান্নায় অপরিশোধিত পানি ব্যবহার করায় দায়ে এক লাখ টাকা জরিমানা করেছেন র‌্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালত।

ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের অভিযানটির তদারকি করেন ঢাকা বিভাগীয় কার্যালয়ের উপপরিচালক (উপসচিব) মনজুর মোহাম্মদ শাহরিয়ার। অভিযান পরিচালনাকারী অধিদপ্তরের ঢাকা জেলা অফিসের সহকারী পরিচালক আব্দুল জব্বার বলেন, অভিযানে নামকরা রেস্টুরেন্ট কড়াই গোস্তকে পচা-বাসি, নোংরা ও অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে খাবার তৈরি করতে দেখা যায়। তাদের খাবারে তেলাপোকাও পাওয়া যায়। এসব অভিযোগে কড়াই গোস্তকে দেড় লাখ টাকা ও একই অভিযোগে বাবুর্চি রেস্টুরেন্টকেও দেড় লাখ টাকা জরিমানা করা হয়। একই সঙ্গে ক্রেতাদের সঙ্গে প্রতারণা বন্ধের জন্য দুটি প্রতিষ্ঠানকে সতর্ক করা হয়।

এদিকে গতকাল দুপুর সাড়ে ১২টায় র‌্যাব সদর দপ্তরের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সারওয়ার আলমের নেতৃত্বে কেএফসিতে যায় র‌্যাবের দল। সেখানে তারা দেখে, যে ফিল্টার থেকে পানি পরিশোধন করে রান্না করার কথা সেটি কাজ করছিল না। তবে রান্নাঘর পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন ছিল।

র‌্যাবের নির্বাহী মেজিস্ট্রেট সারওয়ার আলম বলেন, ‘কেএফসিতে ব্যবহৃত পানি পিউরিফায়েড (পরিশোধিত) না। আমরা রান্নাঘরে গিয়ে দেখতে পাই, কেএফসির ফিল্টারটি কাজ করছে না। সব খাবার অপরিশোধিত পানি দিয়ে রান্না হচ্ছে। এ জন্য তাদের এক লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে।’ তিনি বলেন, ‘কেএফসিতে একজন ভোজনবিলাসী অতিরিক্ত মূল্য দিয়ে খাবার খাচ্ছেন। প্রাইস লিস্টে দেখলাম, একটি চিকেন ফ্রাই তৈরিতে তাদের ৩১ টাকা ৭৫ পয়সা খরচ হয়। অথচ তারা ক্রেতাদের কাছে ১৩৯ টাকায় এটি বিক্রি করছে। এত টাকা নেওয়ার পরও কেন তারা অপরিশোধিত পানি দিয়ে রান্না করবে!’

জানতে চাইলে কেএফসির ধানমণ্ডি শাখার ইনচার্জ সুদীপ কুমার মণ্ডল বলেন, ‘পানি পরিশোধনের যন্ত্রটি সকালেই ঠিক ছিল। ঠিকঠাক লাইট জ্বলেছে, কিন্তু এখন কাজ করছে না।’


মন্তব্য