kalerkantho


ফরিদপুরে সরকারি গাছ কাটার অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক, ফরিদপুর   

২২ মে, ২০১৮ ০০:০০



ফরিদপুর সদরের মাচ্চর ইউপি চেয়ারম্যান-মেম্বারের বিরুদ্ধে সড়কের পাশের জেলা পরিষদের জায়গা থেকে সরকারি তিনটি বড় মেহগনিগাছ কেটে নেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। সংশ্লিষ্ট ইউপি চেয়ারম্যান-মেম্বার গাছ কাটার বিষয়টি স্বীকার করলেও গাছগুলো কোথায় আছে, তা জানাননি।

এলাকাবাসী জানায়, মাচ্চর ইউনিয়নের খলিলপুর-শিবরামপুর সড়কের এলজিইডির সড়কের পাশে ১৯৮৬ সালে লাগানো বেশ কিছু বড় মেহগনিগাছ রয়েছে। এক সপ্তাহ আগে ঝড়ে দুটি মেহগনিগাছ উপড়ে পড়ে এবং একটি গাছ সড়কে কালভার্ট নির্মাণের জন্য কেটে রাস্তার পাশে রাখা হয়। এর মধ্যে দুটি ঝড়ে উপড়ে পড়ে, অন্যটি উন্নয়নকাজের জন্য কাটা হয়। শোনা যাচ্ছে, রশীদ মেম্বার তিনটি গাছই রবিবার রাতে নসিমনে করে নিয়ে গিয়ে বিক্রি করে দিয়েছেন। গাছ তিনটির মূল্য প্রায় আড়াই লাখ টাকা। এ ব্যাপারে মাচ্চর ইউপি সদস্য রশীদ মোল্লা জানান, ইউপি চেয়ারম্যানের কথামতো তিনি গাছগুলো লোক দিয়ে তাঁর কাছে পাঠিয়ে দিয়েছেন।

গাছ কাটার বিষয়টি স্বীকার করে মাচ্চর ইউপি চেয়ারম্যান জাহিদ মুন্সী বলেন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার সঙ্গে আলাপ করে গাছগুলো কেটে এক স্থানে রাখার কথা। সেখান থেকে টেন্ডারের মাধ্যমে গাছগুলো বিক্রি করা হবে। বর্তমানে গাছগুলো কোথায় জানতে চাইলে ইউপি চেয়ারম্যান জানান, রশীদ মেম্বারের হেফাজতে রাখা হয়েছে। যদিও রশিদ মেম্বার গাছগুলো তাঁর কাছে নেই দাবি করে বলেন, ‘আমি উপস্থিত থেকে চেয়ারম্যানের লোকদের কাছে গাছগুলো বুঝিয়ে দিয়েছি।’

সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা প্রভাংশু সোম মহানকে ফোনে পাওয়া যায়নি। একটি সূত্রে জানা গেছে, তিনি সরকারি কাজে ব্যস্ত আছেন।

জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আব্দুর রশীদ বলেন, ঘটনাটি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।



মন্তব্য