kalerkantho


শেরপুরে খড়ের গাদায় ৭৩ গোখরার বাচ্চা

শেরপুর প্রতিনিধি   

২০ মে, ২০১৮ ০০:০০



শেরপুরে শ্রীবরদী উপজেলার কাকিলাকুড়া ইউনিয়নের পল্লী কামারদহ গ্রামে এক কৃষকের বাড়ির উঠান থেকে ৭৩টি গোখরা সাপের বাচ্চা উদ্ধার করে মেরে ফেলা হয়েছে। এ সময় সেখানে ৫০টি সাপের ডিম পাওয়া গেছে।

গত বুধবার থেকে গতকাল শনিবার সকাল পর্যন্ত চার দিনে ওই গ্রামের ইব্রাহীম মিয়ার বসতঘরের সামনের উঠান থেকে এসব সাপের বাচ্চা ও ডিম উদ্ধার করে স্থানীয়রা। তবে এ সময় বড় কোনো সাপের সন্ধান পাওয়া যায়নি। ঘটনাটি এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি করেছে। একই সঙ্গে স্থানীয়দের মধ্যে গোখরা সাপের আতঙ্ক বিরাজ করছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, কামারদহ গ্রামের ইব্রাহীম মিয়ার বসতঘরের সামনের উঠানে বাঁশের মাচার নিচে ছিল খড়ের গাদা। গত বুধবার দুপুরে ওই খড়ের মধ্যে কিছু নড়তে দেখে খড় সরাতে শুরু করে স্থানীয় যুবকরা। সে সময় তারা কয়েকটি সাপের ডিম ও বাচ্চা দেখতে পায়। পরে সবাই মিলে পাশের একটি গর্ত দেখতে পেয়ে সেটি খুঁড়ে ৫৬টি সাপের বাচ্চা ও ৫০টি ডিম উদ্ধার করে। পরদিন বৃহস্পতিবার ওই স্থানের আশপাশ থেকে আটটি, শুক্রবার ও শনিবার আরো ৯টি গোখরা সাপের বাচ্চা পাওয়া যায়। পরে সাপের বাচ্চাগুলোকে মেরে মাটিতে গর্ত করে পুঁতে রাখা হয়। এ সময় সাপের ডিমগুলোও নষ্ট করে দেওয়া হয়।

বসতঘরের মালিক ইব্রাহীম মিয়া বলেন, ‘সাপের বাচ্চাগুলো মারার পর থেকে আমরা খুব আতঙ্কে আছি। বড় সাপ ধরতে এখন আমরা ওঝার সন্ধান করছি।’ কাকিলাকুড়া ইউনিয়নের স্থানীয় ইউপি সদস্য সোহাগ মিয়া বলেন, ‘লোকজনের ধারণা, এলাকাতেই হয়তো বড় সাপ রয়েছে। এ জন্য সন্ধ্যার পর সবাই সতর্কভাবে চলাফেরা করছে।’

 


মন্তব্য