kalerkantho


র‌্যাবের মাদকবিরোধী অভিযান

কুষ্টিয়া ও নারায়ণগঞ্জে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ২

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা ও কুষ্টিয়া এবং নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি   

১৬ মে, ২০১৮ ০০:০০



কুষ্টিয়া ও নারায়ণগঞ্জে

‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ২

সারা দেশে  র‌্যাবের মাদকবিরোধী অভিযানের সময় কুষ্টিয়া ও নারায়ণগঞ্জে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ দুজন নিহত হয়েছে। এ ছাড়া  র‌্যাবের এক সোর্সকে অপহরণকারী চক্রের আট মাদক কারবারিকে গাড়িসহ গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

গতকাল মঙ্গলবার ভোরে কুষ্টিয়া শহরের গড়াই নদীর বাঁধের কাছে স্থানীয় মাদক কারবারি হামিদুল-রাশিদুল (হারা) বাহিনীর প্রধান সন্ত্রাসী হামিদুল ইসলাম (৪৫) নিহত হয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে  র‌্যাব অস্ত্র, গুলি ও ম্যাগাজিন উদ্ধার করেছে। প্রায় একই সময়ে নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জ থানার পাইনাদি এলাকায় ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের পাশে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত হয়েছে রাজ মহল রিকন (৩০) নামের এক মাদক বিক্রেতা। ঘটনাস্থল থেকে একটি আগ্নেয়াস্ত্র, বিপুল পরিমাণ ইয়াবা ও ইয়াবা বিক্রির টাকা উদ্ধার করা হয়েছে।

মাদক প্রতিরোধে আইনি ব্যবস্থায় যত কাঠামো আছে তার সর্বোচ্চ প্রয়োগ করবে  র‌্যাব—সোমবার  র‌্যাবের মহাপরিচালক বেনজীর আহমেদের এমন ঘোষণার পর এ দুটি ‘বন্দুকযুদ্ধের’ ঘটনা ঘটল।

এদিকে রাজধানীতে এক দিনে পৃথক অভিযানে  র‌্যাবের সোর্স অপহরণকারী মাদক ব্যবসায়ী চক্রের আট সদস্যকে গ্রেপ্তার করে  র‌্যাব-১০। এ ছাড়া আদাবরে প্রাইভেট কারের তেলের ট্যাংকের ভেতরে বিশেষ কায়দায় রাখা ৬৫ হাজার পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়। এ সময় দুই কারবারিকে গ্রেপ্তার করে  র‌্যাব-২। নিউ মার্কেটের ইস্টার্ন মল্লিকা মার্কেটের সামনে থেকে ২৫ হাজার পিস ইয়াবাসহ গ্রেপ্তার হয় দুই মাদক কারবারি।

 র‌্যাব সদর দপ্তর থেকে জানানো হয়, রাজশাহীতে চার মাদক কারবারি গ্রেপ্তার এবং ৩২ মাদকসেবীকে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

 র‌্যাব-১২-এর কম্পানি কমান্ডার এম মুহাইমিনুর রশিদ জানান, গতকাল ভোরে কুষ্টিয়ার গড়াই নদীর পাড়ে বালুর মাঠে অভিযানের সময় সন্ত্রাসীরা  র‌্যাবকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে।  র‌্যাবও পাল্টা গুলি চালালে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ হামিদুল ইসলাম নামে একজন গুলিবিদ্ধ হয়। গুরুতর অবস্থায় কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে নেওয়ার পর কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। সে পুলিশের তালিকাভুক্ত শীর্ষ সন্ত্রাসী ও মাদক কারবারি। 

 র‌্যাব-১১-এর সিনিয়র সহকারী পরিচালক আলেপ উদ্দিন জানান, চট্টগ্রাম থেকে একটি ট্রাকে করে ইয়াবার চালান ঢাকার উদ্দেশে যাচ্ছে—এমন সংবাদের ভিত্তিতে  র‌্যাবের একটি দল ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের পাইনাদি এলাকায় চেকপোস্টের কাছাকাছি অবস্থান নেয়। এ সময় একটি ট্রাক চেকপোস্ট পার হয়ে ঢাকার দিকে যাওয়ার সময়  র‌্যাব গতি রোধ করলে ট্রাকের ভেতর থেকে  র‌্যাবকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়া হয়।  র‌্যাবও পাল্টা গুলি চালায়। একপর্যায়ে রিকন গুলিবিদ্ধ হলে তার অন্য সহযোগীরা পালিয়ে যায়। পরে  র‌্যাব ট্রাকটি আটক করে ভেতরে তল্লাশি চালিয়ে দুই রাউন্ড গুলিসহ একটি বিদেশি পিস্তল, ১০ হাজার পিস ইয়াবা ও দুই লাখ টাকা উদ্ধার করে। গুলিবিদ্ধ রিকনকে নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। অভিযানে ডিএডি রবিউল, ডিএডি আজিজ ও এসআই নির্মল আহত হন।

সোর্স অপহরণকারী চক্র : এদিকে গতকাল রাজধানীর কারওয়ান বাজারে  র‌্যাবের মিডিয়া সেন্টারে এক সংবাদ সম্মেলনে  র‌্যাব-১০-এর অধিনায়ক কাইয়ুমুজ্জামান খান বলেন,  র‌্যাবের সোর্স যশোরের সফিকুলকে সম্প্রতি অপহরণ করে মাদক কারবারিরা। তাঁকে উদ্ধারে অভিযানে নেমে আট মাদক বিক্রেতাকে গ্রেপ্তার করে  র‌্যাব। তারা হলো দিলু মিয়া, আব্দুল খালেক, ফাহিম আহমেদ, হাবিবুর রহমান, সফিউর রহমান ওরফে লিটু, আতিকুর রহমান, মোখলেস মোল্লা ও মামুন।

গাড়ির ট্যাংকে ইয়াবা :  র‌্যাব-২ সূত্র জানায়, সোমবার দিবাগত রাতে রাজধানীর আদাবরে ৬৫ হাজার পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়। একটি প্রাইভেট কারের তেলের ট্যাংকে লুকানো অবস্থায় চালানটি পাওয়া যায়। পালানোর সময় ইকবাল হোসেন ও গিয়াস উদ্দিন চৌধুরী নামের দুই কারবারিকে গ্রেপ্তার করা হয়। তারা কক্সবাজার থেকে ইয়াবা নিয়ে এসেছিল। একই রাতে নিউ মার্কেটের ইস্টার্ন মল্লিকা মার্কেটের সামনে থেকে সোলাইমান ও লোকমান হাকিম নামে দুই ব্যক্তিকে ২৫ হাজার পিস ইয়াবাসহ গ্রেপ্তার করা হয়।



মন্তব্য