kalerkantho


বিসিএস সমন্বয় কমিটির অভিযোগ

ব্যক্তিগত গাড়ি কেনায় সহায়তা দিয়ে বৈষম্য বাড়ানো হচ্ছে

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৬ মে, ২০১৮ ০০:০০



উপসচিব পর্যায়ে ব্যক্তিগত গাড়ি কেনায় সুদমুক্ত ঋণ ও গাড়ি রক্ষণাবেক্ষণে আর্থিক সহায়তা দিয়ে আন্ত ক্যাডার বৈষম্য আরো বাড়ানো হয়েছে বলে অভিযোগ করেছে বিসিএস সমন্বয় কমিটি। একই সঙ্গে এই বৈষম্য নিরসনে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা উপেক্ষা করে উপসচিব, যুগ্ম সচিব ও অতিরিক্ত সচিব পদে অব্যাহতভাবে সুপারনিউমারারি পদোন্নতি দিয়ে তা আরো বাড়ানো হচ্ছে বলে গতকাল সোমবার সংগঠনের পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়েছে।

এর আগে গত রবিবার ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনে অনুষ্ঠিত বিসিএস সমন্বয় কমিটির এক সভায় এ বিষয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়।

সভায় বলা হয়, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশের সার্বিক উন্নয়নে ২৬ ক্যাডার ও ফাংশনাল সার্ভিসের কর্মকর্তারা প্রত্যক্ষভাবে দায়িত্ব পালন করছেন; যার সুফল হিসেবে নিম্ন আয়ের দেশ থেকে বাংলাদেশ উন্নয়নশীল দেশে উন্নীত হচ্ছে। এসব ক্যাডার ও সার্ভিসের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা বিশেষ কোনো সুবিধা পান না। অথচ উপসচিব পর্যায়ের পঞ্চম গ্রেডের কর্মকর্তাও গাড়ি কেনার জন্য ৩০ লাখ টাকা সুদমুক্ত ঋণ ও গাড়ি ব্যবস্থাপনার জন্য প্রতি মাসে ৫০ হাজার টাকা পাচ্ছেন; যা অত্যন্ত দুঃখজন ও অমর্যাদাকর। সভায় আন্ত ক্যাডার বৈষম্য নিরসনের অংশ হিসেবে পঞ্চম গ্রেড ও তদূর্ধ্ব পর্যায়ের সব ক্যাডার ও সার্ভিসের কর্মকর্তাদের গাড়ি ক্রয়ের জন্য সুদমুক্ত ঋণসহ অন্যান্য সুবিধা নিশ্চিত করার দাবি জানানো হয়।

সভায় আরো বলা হয়, সব ক্যাডারে সুপারনিউমারারি পদোন্নতির সুযোগ সৃষ্টির বিষয়ে ২০১২ সালে প্রধানমন্ত্রী সুস্পষ্ট নির্দেশনা দেন। এ বিষয়ে কার্যকর উপায় বের করতে সে সময় প্রধানমন্ত্রীর জনপ্রশাসনবিষয়ক উপদেষ্টা এইচ টি ইমামকে প্রধান করে একটি কমিটিও গঠন করে দেওয়া হয়। কমিটির জন্য তিনটি ক্ষেত্রে কাজ করার দায়িত্ব প্রদান করা হলেও সুপারনিউমারারি পদোন্নতির বিষয়ে কোনো কাজ হয়নি। প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া নির্দেশনা আমলাতান্ত্রিক নিয়মের বেড়াজালে আটকে দেওয়া হয়।

সমন্বয় কমিটির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার কবীর আহমেদ ভূইয়ার সভাপতিত্বে সংগঠনের মহাসচিব মো. ফিরোজ খান, প্রচার সম্পাদক স ম গোলাম কিবরিয়া প্রমুখ আলোচনায় অংশ নেন বলে সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়।

 

 



মন্তব্য