kalerkantho


পশুরে কার্গো উদ্ধারকাজ

নোঙর ছিঁড়ে ‘বলগেট’ ভেসে গেছে সুন্দরবনে

বাগেরহাট প্রতিনিধি   

২৩ এপ্রিল, ২০১৮ ০০:০০



সুুন্দরবনের পশুর চ্যানেলে ডুবে যাওয়া কার্গো থেকে গতকাল রবিবার তৃতীয় দিনের মতো পানিমিশ্রিত কয়লা অপসারণ করে বলগেটে মজুদ করা হয়। তবে ঝোড়ো বাতাস, প্রচণ্ড স্রোত এবং নদীতে পানির অতিরিক্ত চাপের কারণে উদ্ধারকাজ বিঘ্নিত হচ্ছে। এরই মধ্যে গতকাল বিকেলে ঝড়ে নোঙর ও রশি ছিঁড়ে গেলে উদ্ধারকারীদের কয়লা মজুদ রাখা একটি বলগেট সুন্দরবনে ভেসে যায়। তিন দিনে কার্গো থেকে ১৫০ টন কয়লা অপসারণ করা হয়েছে বলে উদ্ধারকর্মীরা জানিয়েছেন। শুক্রবার বিকেল থেকে ৩১ জন উদ্ধারকর্মী ওই কার্গো উত্তোলনে কাজ করছেন। মোংলার হোসেন স্যালভেজ এন্টারপ্রাইজ নামের একটি বেসরকারি নৌযান উদ্ধারকারী প্রতিষ্ঠানকে কার্গো উত্তোলনের দায়িত্ব দিয়েছে মালিকপক্ষ।

ডুবুরিদলের প্রধান সোহরাব হোসেন মোল্যা জানান, ঝোড়ো বাতাস, বৃষ্টিপাত, প্রচণ্ড স্রোত এবং নদীতে পানির চাপ বেশি থাকায় কার্গো উদ্ধার তৎপরতায় তাঁদের বেগ পেতে হচ্ছে। ঝড়ে একটি বলগেট ভেসে গেছে। সকালে ভাটার সময় কার্গো থেকে কয়লা অপসারণ করতে পারলেও বৈরী আবহাওয়ার কারণে বিকেলে ভাটায় তাঁরা কাজ করতে পারেননি।

সোহরাব হোসেন মোল্যা আরো জানান, কার্গোর কয়লা পাম্প মেশিনের মাধ্যমে পানির সঙ্গে মিশে উঠে আসছে। জোয়ারের সময় কার্গোটি সম্পূর্ণ পানিতে ডুবে থাকে। ভাটার সময় ছাড়া কয়লা অপসারণ করা যাচ্ছে না। কয়লা অপসারণ করার পর কার্গোটিকে পানির নিচ থেকে টেনে তোলা হবে। সব মিলে প্রায় ২৪ দিন সময় লাগবে কার্গো উত্তোলন করতে।

সুন্দরবন পূর্ব বিভাগের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা (ডিএফও) মাহমুদুল হাসান জানান, এখন উদ্ধারকারীরা কয়লা অপসারণ করছে। এরপর তারা কার্গোটি তুলবে। তবে মালিকপক্ষ এখনো ওই কার্গোর প্রয়োজনীয় কাগজপত্র তাঁদের দেখায়নি বলে ডিএফও জানান।



মন্তব্য