kalerkantho


ফখরুল বললেন

সরকার নীলনকশা নিয়ে এগোচ্ছে

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২০ এপ্রিল, ২০১৮ ০০:০০



বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, ‘সরকার সাজানো নীলনকশা নিয়ে এগোচ্ছে। ২০১৪ সালে নির্বাচন না করাটাও তাদের নীলনকশা ছিল। আজকে সেই অবস্থা আরো ভয়াবহ। তাহলে কেন এখন পর্যন্ত রাজনৈতিক দলগুলো আবার ওই জায়গায় (নির্দলীয় সরকার) এসে এক হচ্ছে না? এটা অবশ্যই জনগণের সামনে বড় প্রশ্ন হিসেবে দেখা দিয়েছে। আজকে আমি এখানে দাঁড়িয়ে সব রাজনৈতিক দল ও সব গণতন্ত্রকামী মানুষের কাছে আহ্বান রাখতে চাই—আসুন, আমরা একটা প্রশ্নে একমত হই, একটা ইস্যুতে। আর তা হচ্ছে একটি নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে আমরা নির্বাচন চাই, গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার চাই। এ বিষয়টাতে একটা জাতীয় ঐকমত্য প্রয়োজন।’

গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে জাতীয় প্রেস ক্লাবের ভিআইপি কনফারেন্স লাউঞ্জে অ্যাসোসিয়েশন অব ইঞ্জিনিয়ার্সের (এ্যাব) উদ্যোগে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে আয়োজিত সভায় ফখরুল এ কথা বলেন।

দলের নেতাকর্মীদের জনগণের কাছে যাওয়ার তাগিদ দিয়ে ফখরুল বলেন, ‘আজকে সব অর্থনীতিবিদ বলছেন, দেশের অর্থনীতি ধ্বংস হয়ে যাচ্ছে, বিকলাঙ্গ একটা অবস্থা তৈরি হয়েছে। প্রকৃত আয় বলতে কিছু নেই মানুষের। কর্মসংস্থান নেই। আর বলছেন, শত শত উন্নতি। এ অবস্থা থেকে অবশ্যই আমাদের মুক্তি পেতে হবে। এই মুক্তির পথ একমাত্র জনগণ, জনগণের কাছে যেতে হবে, তাদের জাগিয়ে তুলতে হবে। জনগণকে নিয়ে গণ-অভ্যুত্থান ঘটাতে হবে। গণতান্ত্রিক উপায়ে শান্তিপূর্ণ উপায়ে এদের পরাজিত করতে হবে এবং জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠা করতে হবে।’ তিনি বলেন, ‘এটা দেশনেত্রীর মুক্তির জন্য শুধু নয়, বাংলাদেশের মানুষের সত্যিকার অর্থে মুক্তির জন্য। অন্যথায় এই ফ্যাসিস্ট দেশকে যে জায়গায় নিয়ে গেছে এই অবস্থা থেকে বেরিয়ে আসার কোনো পথ খুঁজে পাওয়া যাবে বলে আমরা অন্তত মনে করি না।’

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী রাগ করে বললেন, এই করছেন, ওই করছেন ঠিক আছে—এই কোটা পদ্ধতি তুলে দিলাম। এটা তিনি করতে পারেন না, তাঁর সেই অধিকার নেই। সংবিধানের বাইরে তাঁর এই ঘোষণাটা। শিক্ষার্থীরা তা চায়নি, তারা চেয়েছিল সংস্কার অর্থাৎ পরিবর্তন। উনি (প্রধানমন্ত্রী) জানেন, যেটা উনি করছেন তা আদালতে গেলে চ্যালেঞ্জড হবে।’

খালেদার সাক্ষাৎ মেলেনি : কারাবন্দি দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করতে গিয়ে বিফল হয়ে ফিরতে হয়েছে মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরসহ বিএনপির তিন নেতাকে। বিএনপি নেত্রীর অসুস্থতা নিয়ে নানা আলোচনা হচ্ছে। এর মধ্যে গতকাল বিকেলে তাঁর সঙ্গে দেখা করতে পুরান ঢাকার নাজিমুদ্দীন রোডে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে যান মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস ও নজরুল ইসলাম খান। বিকেল ৩টা ৩৫ মিনিটে তাঁরা কারাগারে পৌঁছলে তাঁদের ফটকসংলগ্ন অনুসন্ধান কেন্দ্রে অপেক্ষা করতে বলা হয়। ১৫ মিনিট পর কারা কর্তৃপক্ষ বিএনপিপ্রধানের সঙ্গে দেখা হবে না বলে জানিয়ে দেয়।



মন্তব্য