kalerkantho


চট্টগ্রামে রোগী ও মরদেহ পরিবহনে নীতিমালা কার্যকর ২ এপ্রিল থেকে

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম   

২৩ মার্চ, ২০১৮ ০০:০০



চট্টগ্রাম নগরীতে রোগী ও মরদেহ পরিবহনের জন্য নীতিমালা প্রণয়ন করা হয়েছে। এ নীতিমালা আগামী ২ এপ্রিল থেকে কার্যকর হবে। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে নগর ভবনের কে বি আবদুচ ছাত্তার মিলনায়তনে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন ও দৈনিক আজাদীর যৌথ উদ্যোগে সংবাদ সম্মেলনে মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন এ নীতিমালা ঘোষণা করেন।

সিটি মেয়র নীতিমালাটি প্রাথমিকভাবে পাইলট হিসেবে তিন মাস চালু রাখার ঘোষণা দেন। এরপর পুনর্মূল্যায়নের ভিত্তিতে এটি চূড়ান্ত করা হবে বলে জানান আ জ ম নাছির উদ্দীন।

চট্টগ্রামের বিভিন্ন উপজেলার দূরত্ব, রোগী ও মরদেহ পরিবহনের ভাড়া নীতিমালার মধ্যে রয়েছে বৈধ মালিকদের গাড়ি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের নিবন্ধনের আওতায় আনা, চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে একটি নিয়ন্ত্রণ কক্ষ চালু করা, ফ্রিজার ভ্যান, এসি ও নন-এসি অ্যাম্বুল্যান্স ক্যাটাগরিতে সিরিয়াল দেওয়া, সর্বোচ্চ পাঁচটি গাড়ি হাসপাতালের পার্কিংয়ে রাখা, গন্তব্যে ব্রিজ, ফ্লাইওভার ও সড়কের টোল গ্রাহকের পরিশোধ করা, শৃঙ্খলা ভাঙলে গাড়ির নিবন্ধন বাতিল করে কালো তালিকাভুক্ত করা, গ্রাহকের অভিযোগ জানানোর জন্য হেল্পলাইন চালু করা ইত্যাদি।

আন্ত নগরে নন-এসি ছোট গাড়ি (১৮০০ সিসির নিচে) এক হাজার ৫০০ টাকা স্থির খরচের সঙ্গে প্রতি কিলোমিটার ১৪ টাকা। বড় গাড়ি (১৮০০ সিসি ও তার চেয়ে বেশি) এক হাজার ৫০০ টাকা স্থির খরচের সঙ্গে প্রতি কিলোমিটার ১৭ টাকা। এসি ও ফ্রিজার ভ্যান এক হাজার ৫০০ টাকা স্থির খরচের সঙ্গে প্রতি কিলোমিটার ১৯ টাকা। পাহাড়ি অঞ্চলে প্রতি কিলোমিটার ১০ শতাংশ বেশি। ফ্রিজার ভ্যানের ওয়েটিং চার্জ গন্তব্যে পৌঁছার পর প্রথম ঘণ্টা ফ্রি। এরপর গ্রাহকের বিদ্যুৎ ব্যবহারে প্রতি ঘণ্টায় ৩০০, পরিবহনের বিদ্যুৎ ব্যবহারে প্রতি ঘণ্টায় ৩৫০ টাকা। অক্সিজেনের জন্য নতুন সিলিন্ডারপ্রতি ২২০ টাকা গ্রাহককে দিতে হবে।

সংবাদ সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন নীতিমালা প্রণয়ন কমিটির আহ্বায়ক চমেক হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. জালাল উদ্দিন, সদস্য চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. সেলিম মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর, দৈনিক আজাদীর পরিচালনা সম্পাদক ওয়াহিদ মালেক, বিআরটিএ চট্টগ্রামের উপপরিচালক মোহাম্মদ শহীদুল্লাহ, বিএমএ চট্টগ্রাম শাখার সাধারণ সম্পাদক ডা. ফয়সল ইকবাল চৌধুরী প্রমুখ।



মন্তব্য